দুই দিনে ২৯৫ রান দরকার বাংলাদেশের

সু.খবর ডেস্ক
আরও কিছুক্ষণ খেলা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু দিন থাকতেই সিলেটে দিনের আলো নিভে গেছে। শেষ হয়েছে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের মধ্যকার প্রথম টেস্টের তৃতীয় দিনের খেলা। দিন শেষের আগে সিকান্দার রাজা অবশ্য বড় ভয় ধরিয়েছে বাংলাদেশ দলে। তবে শেষ পর্যন্ত ২৬ রান তুলে ১০ উইকেট হাতে নিয়েই দিন শেষ করেছেন দুই ওপোনার লিটন দাস ও ইমরুল কায়েস। শেষ দুই দিনে জিতলে হলে বাংলাদেশকে ২৯৫ রানের কঠিন লক্ষ্য পূরণ করতে হবে।
চায়ের দেশ সিলেটের প্রথম টেস্ট ম্যাচ এটি। আর তাই চতুর্থ ইনিংসে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে কত রান তাড়া করে জেতা সম্ভব তার কোন ইতিহাস নেই। তবে বাংলাদেশের মাটিতে গড়ানো আগের টেস্ট ম্যাচগুলোয় চোখ বুলালে দেখা যায়, জিম্বাবুয়ের দেওয়া ৩২১ রানের লক্ষ্য তাড়া করে জিততে হলে রেকর্ড করতে হবে বাংলাদেশে। এখানে টেস্টে সর্বোচ্চ ২১৯ রান তাড়া করে ৬ উইকেটের জয়ের রেকর্ড আছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের।
বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে জিম্বাবুয়ে ১৮১ রানে অলআউট হয়ে যায়। এর আগে প্রথম ইনিংসে ১৩৯ রানের লিড পায় তারা। দুই ইনিংস মিলিয়ে তাদের লিড বেড়ে হয় ৩২০ রান।শেষ বিকেলে ব্যাটে নেমে লিটনের অপরাজিত ১৪ ও ইমরুলের হার না মানা ১২ রানের সুবাদে ২৬ রান তুলেছে। এর আগে জিম্বাবুয়ের দ্বিতীয় ইনিংসে দলের হয়ে মাসাকাদজা করেন ৪৮ রান। টেইলর-রাজারা-শেন উইলিয়ামসরা ২০, ২৫ রান করে করলে ওই রান করতে পারে তারা। বাংলাদেশের হয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ৫ উইকেট পান তাইজুল ইসলাম। এছাড়া দুই ইনিংসে মিলিয়ে ১১ উইকেট নিয়েছেন এই বাঁ-হাতি স্পিনার। এছাড়া মেহেদি মিরাজ তিনটি ও নাজমুল ইসলাম পেয়েছেন দুই উইকেট।
এর আগে শনিবার শুরু হওয়া টেস্টে টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে সবক’টি উইকেট হারিয়ে ২৮২ রান সংগ্রহ করে জিম্বাবুয়ে। প্রথম ইনিংসে সফরকারীদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৮ রান করেন শেন উইলিয়ামস। এছাড়া পিটার মুর ৬৩ ও হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ৫২ রান করেন। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের পক্ষে তাইজুল ইসলাম ৬ উইকেট নেন। এছাড়া নাজমুল ইসলাম দুটি ও আবু জায়েদ, মাহমুদুল্লাহরা একটি করে উইকেট নেন।
জবাবে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে চরম ব্যাটিং ব্যর্থতায় ১৪৩ রানে অলআউট হয়ে যায় বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪১ রান করেন আরিফুল হক। এছাড়া মুশফিকুর রহিম ৩১ ও মেহেদি হাসান মিরাজ ২১ রান করেন।
সূত্র : সমকাল