দু’পক্ষের পাল্টাপাল্টি অবস্থানে তাহিরপুরে উন্নয়ন কাজ বন্ধ

স্টাফ রিপোর্টার
তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের দিঘীরপাড়-পাঠানপাড়া খেয়াঘাট সড়কটির উন্নয়নমূলক কাজ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সড়ক নির্মাণ নিয়ে স্থানীয় বাদাঘাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি মো. বাবুল হোসেনের মধ্যে এ বিরোধ দেখা দেয়ায় বন্ধ রয়েছে উন্নয়নমূলক কাজটি।
এলজিইডি সূত্র মতে, সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের দিঘীরপাড়-পাঠানপাড়া খেয়াঘাট সড়কটির উন্নয়নমূলক কাজের দরপত্র আহবান করলে কাজের দায়িত্ব পায় মেসার্স অমল কান্তি চৌধুরী। সম্প্রতি কাজটি শুরু হলে স্থানীয় চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন কাজের গুণগতমান ভাল নয় বলে অভিযোগ করেন। স্থানীয় এলাকাবাসী একটি মানববন্ধনও করে। ২৪ সেপ্টেম্বর কাজটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। এরপরপরই স্থানীয় আরেকপক্ষ কাজের গুণগত মান ভাল এবং ব্যক্তি আক্রোশের কারণে কাজ বন্ধ করার প্রতিবাদে মানববন্ধন করে। স্থানীয়রা জানান, চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি মো. বাবুল মিয়ার পরিবারের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ রয়েছে।
কাজ বন্ধের পর তাহিরপুর উপজেলা প্রকৌশলী মো. সাইদুল্লাহ বিষয়টি নির্বাহী প্রকৌশলীকে চিঠি দিয়ে অবহিত করেন (স্মারক নং ৪৬.০২.৯০৯২.০০০.১৮.০০১.১৯-৪৮১)।
উপজেলা প্রকৌশলী ও ঠিকাদারীর প্রতিষ্ঠানের আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রশাসনিক নিরাপত্তা প্রদানের আবেদন জানিয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে চিঠি লিখেছেন (স্মারক নং ৪৬.০২.৯০০০.০০০.১৪.১৮১.১৯-৩৯৮৫) নির্বাহী প্রকৌশলী ইকবাল আহমেদ।
এ বিষয়ে বাদাঘাট ইউপি চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন জানান, কাজের গুণগত মান খুবই খারাপ। এ কারণে এলাকাবাসী কাজটি বন্ধ করে দিয়েছে। এ অভিযোগ অস্বীকার করে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি মো. বাবুল হোসেন বলেন, কাজের মান ভাল। উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন তার নিজস্ব লোকজন নিয়ে কাজটি বন্ধ করে দিয়েছেন।
তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করুণা সিন্ধু চৌধুরী বলেন, এই কাজের মান ঠিক আছে কী-না, এই নিয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগ তদন্ত করছে। তদন্ত সম্পন্ন করে জনস্বার্থে কাজ শুরু করা জরুরি।