দুর্গোৎসবে দেশজুড়ে রোবস্ট পেট্রোলিং র‌্যাবের

সু.খবর ডেস্ক
শারদীয় দুর্গোৎসব ঘিরে দেশজুড়ে সমন্বিত নিরাপত্তা ব্যবস্থা হাতে নেওয়ার কথা জানিয়েছে এলিট ফোর্স র‌্যাব। গুরুত্বপূর্ণ পূজাম-পে ফোর্স মোতায়েনের পাশাপাশি থাকবে দেশজুড়ে র‌্যাবের রোবস্ট পেট্রোলিং (অনেকগুলো গাড়ি একসঙ্গে মিলে)। শুক্রবার রাজধানীর বনানী পূজাম-পের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা জানান র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ।
র‌্যাব ডিজি বলেন, সারাদেশে ৩১ হাজারের বেশি পূজাম-পে পূজা উদযাপিত হবে। শান্তিপূর্ণভাবে পূজা উদযাপনের জন্য র‌্যাবের পক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পূজাম-পে যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আমাদের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, ডগ স্কোয়াডের মাধ্যমে সুইপিং করা হবে।
সন্ত্রাসী ও জঙ্গিরা যেন কোনো ধরনের তৎপরতা চালাতে না পারে সেজন্য র‌্যাব তৎপর রয়েছে। পাড়া-মহল্লার মোড়ে চেকপোস্ট বসানো হবে, সন্দেহভাজন এলাকাতে ব্লক রেইড পরিচালিত হবে।
এছাড়াও সারাদেশের র‌্যাবের কমান্ডিং অফিসার ও ক্যাম্প অফিসারদের সঙ্গে পূজা কমিটির বৈঠক হয়েছে। অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।
পূজাম-পে নারীদের যেন কোনো প্রকার হেনস্থার শিকার না হয় সেই নির্দেশনা দিয়ে বেনজীর আহমেদ বলেন, ইভটিজিং স্পষ্টত যৌন হয়রানি। নারীরা যেন কোনো প্রকার হয়রানির শিকার না হয় সে বিষয় আমরা লক্ষ্য রাখবো।
তিনি আরো বলেন, আপনারা জানেন আমাদের কর্মীবাহিনী সীমিত, তারপরেও আমরা চেষ্টা করবো অন্তত প্রত্যেকটি পূজাম-পে অন্তত একবার করে ঘুরে আসার। যেন সবাই আশ্বস্ত হতে পারেন।
পূজার বিসর্জন হওয়া পর্যন্ত সার্বিক পরিস্থিতি র‌্যাব সদর দফতর থেকে মনিটরিং করা হবে জানিয়ে র‌্যাব ডিজি বলেন, বিসর্জন (মঙ্গলবার) পর্যন্ত আমাদের মনিটরিং অব্যাহত থাকবে। বিসর্জনও বির্বিঘ্ন করতে আমাদের পক্ষ থেকে বিশেষ ব্যবস্থা থাকবে।
বেনজীর আহমেদ বলেন, বর্তমানে সারাদেশে ৩১ হাজার ৮০০ ম-পে পূজা উদযাপন হয়। ২০০৯ সালে বর্তমান সরকার দায়িত্ব গ্রহণের আগে ১১ হাজার ম-পে পূজার আয়োজন হতো। এ থেকে বোঝা যায়, বর্তমানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা সুসংহত এবং বর্তমান সরকারের আমলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। এ উন্নয়নের সুফল সবাই সমানভাবে ভোগ করছেন।
সূত্র : বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম