দুর্ঘটনার পর এবার পরিবহন ধর্মঘট

দিরাই প্রতিনিধি
দুর্ঘটনায় মোটর সাইকেল আরোহীর মৃত্যুর পর বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী কর্তৃক গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সুনামগঞ্জ- দিরাই সড়কে পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা হঠাৎ করে ধর্মঘট শুরু করে দিয়েছেন। সুনামগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন মালিক – শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ডাকে শুক্রবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য এই ধর্মঘট চলছে। একই সংগঠনের আহ্বানে রোববার সকাল ৬ টা থেকে সুনামগঞ্জ-সিলেট মহাসড়কসহ জেলার সকল সড়কে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট আহ্বান করেছে পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ।
শুক্রবার সকাল থেকেই সুনামগঞ্জ ও সিলেট থেকে দিরাইগামী কোন বাস ছাড়ছে না। তাতে ভোগান্তিতে পড়েছেন দিরাই-শাল্লার যাত্রীরা।
সকাল থেকে দিরাই-শাল্লা উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের কয়েক শত লোক দিরাই বাস স্টেশনে আসেন। কিন্তু এসে দেখেন টিকিট কাউন্টারগুলো বন্ধ, কোন গাড়ী নেই। চরম বিপাকে পড়েন বিভিন্ন গন্তব্যে যাওয়ার উদ্দেশ্যে আসা সাধারণ জনগণ। এক পর্যায়ে তারা সেখানে বিক্ষোভ করেন। ক্ষুব্ধ ফিরোজ মিয়া (৬০) বলেন, কয়েকজন মালিক আর কয়েকশত শ্রমিকের কাছে আজ লক্ষাধিক মানুষ জিম্মি, রাস্তায় মানুষ হত্যা করবে আবার ধর্মঘটও ডাকবে! এভাবে চলতে দেয়া যায় না।
শাল্লা থেকে আসা নিভা রানী দাস বলেন, শাল্লা থেকে অনেক কষ্ট করে এসেছি সুনামগঞ্জ যাওয়ার জন্য। কিন্তু এখানে এসে জানতে পারলাম গাড়ী চলবে না, ধর্মঘট চলছে।
পৌর সদরের হেলু মিয়া জানান, গতকাল ওসমানী মেডিকেল কলেজে আমার শাশুড়ির অপারেশন হয়েছে, পরিবার নিয়ে আজ সিলেট যাওয়ার জন্য বাস স্টেশনে এসে শুনি পরিবহন ধর্মঘট।
পরিবহণ ধর্মঘট কেন, জানতে চাইলে জেলা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সেজাউল করিম জানান, দ্রুত বিচার আইনে গাড়ী পুড়ানোর মামলা নিচ্ছে না পুলিশ। আগামীকাল (আজ) শনিবারের মধ্যে বাস পুড়ানো মামলা দ্রুত বিচার আইনে না নিলে রোববার থেকে সারা জেলায় পরিবহন ধর্মঘট ডাকা হবে।
জেলা সড়ক পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের মহাসচিব মো. জুয়েল মিয়া জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে দিরাই- সুনামগঞ্জ সড়কে দুর্ঘটনা কবলিত একটি বাসে অগ্নিসংযোগ করার প্রতিবাদে আন্দোলনের ঘোষণা দিয়েছে পরিবহন শ্রমিকরা। তাদের মতে সুষ্ঠু বিচারের বদলে অগ্নিসংযোগ করায় ক্ষতির পরিমাণ বেড়েছে।
প্রসঙ্গত. বৃহস্পতিবার দুপুরে দিরাই – সুনামগঞ্জ সড়কের নোয়াখালী সংলগ্ন এলাকায় বাস ও মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে রাহেল মিয়া নামের এক মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু হয়। পরে এলাকাবাসী এই বাসটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করেই অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ।