দেয়াল নির্মাণের মালামাল লুটপাটের অভিযোগ

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ অফিস
দক্ষিণ সুনামগঞ্জে দেয়াল নির্মাণের লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ৩ জুন সুনামগঞ্জ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অভিযোগ করেন উপজেলার পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের শত্রুমর্দন গ্রামের মৃত. অনন্ত মোহন চন্দ্রের পুত্র অভিনাশ চন্দ্র অনুকূল।
জানা যায়, গত ৩০ মে অভিনাশ চন্দ্র অনুকূল পাগলা শত্রুমর্দন গ্রামে তার মালিকানাধীন জায়গায় সীমানা প্রাচীর নির্মাণ শুরু করেন। এসময় একই গ্রামের মৃত. পুলিন পালের পুত্র হিরেশ পাল ও মৃত. রামচরণের পুত্র রনজিত পাল, মৃত. তরনি পালের পুত্র তমেশ পাল, মৃত. কুঞ্জ মোহন পালের পুত্র কুমুদ পাল, মৃত. পরেশ পালের পুত্র পঙ্কজ পাল, মৃত. মাখন পালের পুত্র নিবাস পাল, সুবাশ পাল, মৃত. অভিনাশ পালের পুত্র অশক পাল, মৃত. হরিপালের পুত্র প্রদীপ পাল, প্রনয় পাল, মৃত. পুলিন পালের পুত্র ভজন পাল, মৃত. রনজিত পালের পুত্র রিপন পাল ও তরনি পালের পুত্র প্রানেশ পাল ১ লক্ষ টাকা চাঁদা চায় অভিনাশ চন্দ্র অনুকূলের কাছে। চাঁদা না দেয়ায় জোর করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণের জন্য থাকা রড, সিমেন্ট, ইট, বালি, পাথর, ইত্যাদি লুট করে নিয়ে যায়। যার মূল্য আনুমানিক ১ লক্ষ ৭৮ হাজার টাকা। ঘটনার পর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। কিন্তু কোন সুরাহা না হওয়ায় অভিনাশ চন্দ্র অনুকূল সুনামগঞ্জ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অভিযোগ দায়ের করেন।
জমির মালিক অভিনাশ চন্দ্র অনূকুল বলেন, প্রভাবশালীদের চাঁদা না দেয়ায় সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করতে পারছি না। আমাকে হুমকি দিয়েছে আমি মামলা মোকদ্দমা করলে আমাকে হত্যা করবে।
এ ব্যাপারে হিরেশ পাল বলেন, আমরা কোন মালামাল লুটপাট করি নাই।
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হারুনুর রশীদ চৌধুরী মামলার সত্যতা স্বীকার করে বলেন মামলাটি তদন্তাধীন রয়েছে।