সংস্কৃতিকর্মী-সাংবাদিক জয়ন্তের অকাল মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার
দৈনিক সুনামগঞ্জের খবর এর দিরাই উপজেলা সংবাদদাতা জয়ন্ত কুমার সরকার আর নেই।
রবিবার সকাল পৌনে ১০ টার দিকে দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তিনি পরলোকগরণ করেছেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, দুই ছেলেমেয়ে, মা-বাবা, দুই বোন, এক ভাই সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী ও আত্মীয় স্বজন রেখে গেছেন।
জানা যায়, রবিবার সকালে সকালে হাঁটাহাঁটি শেষে বাসায় ফিরে বুকে ব্যথা অনুভব করেন জয়ন্ত। তাকে দিরাই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান স্বজনরা। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৩৪ বছর।
সাংবাদিক ও সংস্কৃতি কর্মীদের প্রিয়মুখ জয়ন্ত কুমার সরকারের আকস্মিক মৃত্যুতে দিরাই শহরে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সরকারি কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও সংস্কৃতি কর্মীরা জয়ন্ত কুমার সরকারের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন।
জয়ন্ত কুমার সরকারের বাড়ি দিরাই উপজেলার রফিনগর ইউনিয়নের আলীপুর গ্রামে। বর্তমানে তিনি দিরাই পৌর শহরের উপজেলা রোড এলাকার আনোয়ারপুরে পরিবার নিয়ে থাকতেন। তার পিতা অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষক জ্যোতিষ চন্দ্র সরকার এবং মাতার নাম মঞ্জু রানী সরকার।
জয়ন্ত কুমার সরকার সাংবাদিকতার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক রাধারমণ পরিষদ ও আন্তর্জাতিক রাধারমণ ধামাইল সংঘ দিরাই শাখার সাধারণ সম্পাদক ও প্রতাপরঞ্জন স্মৃতি পরিষদেও ছিলেন। দিরাই উদীচীর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকেরও দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠনের সাথে যুক্ত ছিলেন। তার মৃত্যুতে দৈনিক সুনামগঞ্জের খবর পরিবার গভীর শোক এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেছে।
দৈনিক সুনামগঞ্জের খবর পরিবারের পক্ষ থেকে রবিবার রাত ৮ টায় শোক সভার আয়োজন করা হয়।
জয়ন্ত কুমার সরকারের ভাই জুষেন সরকার বলেন, বুকে ব্যথা হচ্ছে জানালে ভাইকে নিয়ে হাসপাতালে আসি। ডাক্তাররা সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন। কিন্তু আমার ভাই মৃত্যুর কাছে হার মেনেছে। তার এ আকস্মিক মৃত্যু মেনে নিতে পারছি না। রবিবার বিকেল ৫টায় গ্রামের বাড়ি আলীপুরে জয়ন্ত কুমার সরকারের অন্তোষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়।