‘দৈনিক সুনামগঞ্জের খবর’ মানুষের কথা বলে

হোসেন তওফিক চৌধুরী
সাংবাদিকতার ইতিহাস সমৃদ্ধ সুনামগঞ্জ থেকে প্রকাশিত ‘দৈনিক সুনামগঞ্জের খবর’ নিরবিচ্ছিন্ন প্রকাশনা অব্যাহত রেখে এক অনন্য নজির স্থাপন করতে চলেছে। পত্রিকাটি প্রকাশের পর থেকে অত্যন্ত সতর্কতার সাথে বস্তুনিষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নীতি বজায় রেখে সর্বমহলে ইতোমধ্যেই সুনাম ও প্রশংসা অর্জন করেছে।
সুনামগঞ্জের মতো প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে পত্রিকা প্রকাশ এবং প্রকাশনা অব্যাহত রেখে পত্রিকাটি জনমনে আস্থা লাভ করেছে। সুনামগঞ্জের অভাব অভিযোগ, মানুষের সুখ-দু:খের কথা পত্রিকা অত্যন্ত অপকটে এবং মুন্সিয়ানার সাথে প্রকাশ করা হয়। এতে জনমনে একটি আস্থা ও ভরসার সৃষ্টি হয়েছে। মানুষ ভাবছে ‘সুনামগঞ্জের খবর’ তো আমাদের না বলা কথা বলে এবং কথা বলা ও প্রকাশের একটি অকুতোভয় প্লাটফর্ম হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে। এবার চলতি বোর মৌসুমে অভূতপূর্ব ফসলহানি, বাঁধ নির্মাণে নয়-ছয় দুর্নীতির বিরুদ্ধে এই পত্রিকা ছিল সবচেয়ে বেশী সোচ্চার এবং আপোষহীন। বলতে গেলে বলতে হবে এই পত্রিকা কোন কোন কায়েমী স্বার্থবাদী মহলের ভ্রƒকুটি চোখ রাঙানিকে উপেক্ষা করেই এই মহান দায়িত্ব পালন করেছে। এতে জনমনে পত্রিকাটি স্থান করে নিয়েছে এবং জনগণ মনে করে কোন কোন নেতা জনগণের সত্যিকার দুর্দশার কথা না বললেও পত্রিকাটি বলবে। এতে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ সঠিক অবস্থা অবহিত হতে পেরেছে। মফস্বলের পত্রিকা প্রকাশে অনেক ঘাত প্রতিঘাত এবং আর্থিক সংকট লেগেই আছে। পত্রিকার প্রাণ বিজ্ঞাপন। কিন্তু প্রয়োজনীয় বিজ্ঞাপন সুনামগঞ্জে পাওয়া যায় না। তবুও পত্রিকা কর্তৃপক্ষ ঝুঁকি নিয়ে পত্রিকা প্রকাশ করছেন। সেজন্য পত্রিকা কর্তৃপক্ষকে আন্তরিক অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানাতে হয়। পত্রিকার এই পথচলা যদি অব্যাহত থাকে তবে বলা যায় সুনামগঞ্জের সাংবাদিকতার ইতিহাসে এই পত্রিকা অচিরেই একটি বিশিষ্ট স্থান দখল করবে। পত্রিকার এই শুভ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আমি পত্রিকার সর্বাঙ্গীন মঙ্গল ও উন্নতি কামনা করি। পত্রিকার জন্মদিনে আমি সুনাগঞ্জের কয়েকজন প্রথিতযশা সাংবাদিককে স্মরণ করি। তাঁদের মধ্যে ফজলুল হক সেলবর্ষী, মকবুল হোসেন চৌধুরী, শাহেদ আলী, প্রযেশ কুমার রায়, মো. আব্দুল হাই, সালেহ চৌধুরী, হাসান শাহরিয়ার, পীর হাবিবুর রহমান প্রমুখ।
লেখক : আইনজীবী ও কলামিষ্ট ।



আরো খবর