দোয়ারায় বিভিন্ন কর্মসূচিতে মুহিবুর রহমান মানিক

দোয়ারাবাজার প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জ ৫ (ছাতক-দোয়ারা) আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক বলেছেন, করোনা মোকাবেলায় সরকার কর্মহীন ও অসহায় মানুষকে নগদ অর্থ ও খাদ্য সহায়তা প্রদান অব্যাহত রেখেছে। দেশে সব ধরনের সরকারি ভাতা প্রদান করা হচ্ছে। তিনি বলেন, সরকারের দেয়া সহায়তা নিয়ে রাজনৈতিকভাবে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে। অপপ্রচার থেকে বিরত থাকেন, গরীবের সহায়তা নিয়ে তামাশা করবেন না। এসব মিথ্যা বানোয়াট বিভ্রান্তিমূলক কথা বার্তায় কান না দেয়ার জন্য আহবান জানান তিনি।
বৃহস্পতিবার দুপুরে দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে গরীব অসহায় ১ হাজার পরিবারের জন্য সংসদ সদস্য ও উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন।
এসময় সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক এর উপস্থিতিতে উপজেলার ২১ টি কওমি মাদ্রাসার এতিম ও দুস্ত শিক্ষার্থীদের মাঝে ১০ হাজার টাকা করে বিতরণ করা হয়েছে।
অপরদিকে উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের সহায়তায় জাতীয় সমাজ কল্যাণ পরিষদ কর্তৃক প্রাপ্ত করোনাভাইরাস জনিত পরিস্থিতিতে গরীব অসহায়দের মাঝে নগদ অর্থ প্রদান করেন তিনি।
এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা ডা. আব্দুর রহিম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোনিয়া সুলতানা, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক, বাংলাবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জসিম আহমেদ চৌধুরী রানা, লক্ষিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমিরুল হক, ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আম্বিয়া আহমদ, সমাজসেবা কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম, পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা রিপন চন্দ দাস, উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা বরুন চন্দ দাস, উপজেলা সেচ্চাসেবক লীগ নেতা ছালিক মিয়া, মোশাররফ হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা নিউটন দাস, ৯ টি ইউনিয়ন সভাপতি সাধারণ সম্পাদক, প্রতিটি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক ও তৃনমূল নেতাকর্মী।
এদিকে বিকেলে উপজেলা খাদ্য গুদামে কৃষকের কাছ থেকে সরকারি ন্যায্য মূল্যে বোর ধান সংগ্রহের কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোনিয়া সুলতানার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ছাতক দোয়ারার সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা ডা আব্দুর রহিম, খাদ্য নিয়ন্তক মো. সেলিম হায়দার, খাদ্য পরিদর্শক মো. আহসান হাবীব প্রমুখ।