দোয়ারা, দ. সুনামগঞ্জ ও ছাতকে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন

সু.খবর রিপোর্ট
৬ দফা দাবিতে মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন দোয়ারাবাজার উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাগণ। মঙ্গলবার দুপুরে দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইদ্রিছ আলী বীরপ্রতীক, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার নুরুল মোমেন, দোয়ারাবাজার উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার সফর আলী, মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দুর রহমান প্রমুখ। মানববন্ধনের পর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ৬ দফা দাবি জানিয়ে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।
দাবিতে উল্লেখ করা, কোটা সংস্কারের নামে উস্কানীদাতা ও সন্ত্রাস সৃষ্টিকারীদের শাস্তির দাবি করতে হবে। জামায়াত, শিবির, স্বাধীনতা বিরোধী ব্যক্তি ও তাদের দলের নেতাকর্মীদের সরকারি চাকুরি দেয়া বন্ধ করতে হবে। জামায়াত, শিবির, স্বাধীনতা বিরোধী ব্যক্তি ও তাদের দলের যেসব নেতাকর্মী সরকারি চাকুরিতে থেকে দেশের উন্নয়ন ব্যহত করছে ও নানা চক্রান্তে লিপ্ত রয়েছে তাদের বরখাস্ত করতে হবে।
২০১৩, ২০১৪ ও ২০১৫ সালে যারা নাশকতা সৃষ্টি করে সরকারি ও বেসরকারি সম্পদ নষ্ট করেছে তাদের শাস্তি নিশ্চিত করা এবং মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিযোদ্ধা ও বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে কটাক্ষকারীদের বিরুদ্ধে আইন প্রণয়ন করে বিচারের ব্যবস্থা করার দাবি জানান বক্তারা।
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ
“মুক্তিযোদ্ধা দেশ ও জাতির সন্তান, মুক্তিযোদ্ধাদের চেতনা বিরোধী সকল চক্রান্ত রুখে দাড়াও’ এ ¯ে¬াগানকে সামনে রেখে দক্ষিণ সুনামগঞ্জে আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও মুক্তিযোদ্ধারা মুক্তিযোদ্ধাদের ৩০ ভাগ কোটা বহালের দাবিতে মিছিল-সমাবেশ করেছে।
মিছিল-সমাবেশ শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার হারুন অর রশিদের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেন মুক্তিযোদ্ধাগণ।
মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আতাউর রহমানের নেতৃত্বে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা অফিস থেকে একটি মিছিল বের করে শান্তিগঞ্জ বাজার সিলেট-সুনামগঞ্জ মহাসড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্বারকলিপি প্রদান করেন।
স্মারকলিপি প্রদানকালে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম মুক্তিযোদ্ধাদের দাবির সাথে একাত্মতা পোষণ করেন।
স্মারকলিপি প্রদানের পূর্বে উপজেলা পরিষদ চত্বরে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আতাউর রহমানের সভাপতিত্বে, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান মোহাম্মদ আলীর পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার রাধাকান্ত তালুকদার, সাবেক সহ কমান্ডার নজরুল ইসলাম, সুশীল ব্যানার্জী, মুক্তিযোদ্ধা অধীর চন্দ্র দাস, নিয়ামত আলী, পাথারিয়া ইউনিয়ন কমান্ডার অঞ্জন কুমার দাস, শিমুলবাঁক ইউনিয়ন কমান্ডার শের আলী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সাংগঠনিক স¤পাদক শাহীন রহমান, সদস্য জাকারিয়া চৌধুরী, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সভাপতি সুদর্শন ব্যানার্জি, সদস্য রিপন কুমার দাস, বিশ্বজিৎ তালুকদার, সৌরভ রঞ্জন দাস, দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।
ছাতক
শ্রমিক-কর্মচারী পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ এবং মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ও প্রজন্ম সমন্বয় পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির ৬ দফা দাবি সম্বলিত একটি স্মারকলিপি ছাতক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে প্রদান করা হয়েছে।
মঙ্গলবার সকালে মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তানরা উপস্থিত হয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নাছির উল্লাহ খানের হাতে এ স্মারকলিপি প্রদান করেন।
পরে উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহাল রাখার দাবিতে সাবেক কমান্ডার নুরুল আমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, সাবেক কমান্ডার আনোয়ার রহমান তোতা মিয়া, আব্দুস সামাদ, সাংগঠনিক কমান্ডার গোলাম মোস্তফা, পৌর কমান্ডার অজয় ঘোষ, মুক্তিযোদ্ধা কবির উদ্দিন লালা, আজাদ মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান আবু শামীম, সাইফুল আলম, মাসুদ রানা, সাহেব আলী, শহীদুল ইসলাম, হুমায়ূন কবির রুবেল, মানিক মিয়া, নুরুজ্জামান, কয়েছ আহমদ, আক্কাছ মিয়া, কদ্দুছ মিয়া, মামুন হোসেন, রবিন আহমদ, শাহীন মিয়া তালুকদার, সাবানা বেগম, জেসনা বেগম, হেলিনা বেগম, ফিরোজ মিয়া, আশরাফ মিয়া, রাসেন্দ্র দস্তিদার, আবুল ফজল, নিজাম উদ্দিন, ইলিয়াস আলী, সজীব দাস, খলিরুর রহমান, সমর আলী মহিন মিয়া, এমদাদ হোসেন, জামিল আহমদ, আরজ খা প্রমুখ।