দ্বিতীয় ডোজের টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু

সু.খবর রিপোর্ট
মহামারি করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষার ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ দেয়া শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে টিকাদান কেন্দ্রে দ্বিতীয় ডোজ করোনা টিকা দেয়া শুরু হয়। সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত সহ যারা গত ২৭ ও ২৮ জানুয়ারি এবং ৭ ফেব্রুয়ারি ১ম ডোজ টিকা নিয়েছেন, তারা টিকা নেন। টিকাদান কার্যক্রম পরিদর্শন করেন সিভিল সার্জন ডা. মো. শামস উদ্দিন, জেলা সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক আনিসুর রহমান, জেলা সদর হাসপাতালের উপপরিচালক মাহবুবুর রহমান, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ আশরাফুল হক, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সৌমিত্র চক্রবর্ত্তী, জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।
এদিকে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ও সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা করোনা ভাইরাস ভ্যাকসিন প্রদান বিষয়ক উপজেলা কমিটির সদস্য সচিব ডা. সৌমিত্র চক্রবর্ত্তী এক জরুরী বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, কোনো কারণে মোবাইলে মেসেজ না পেলেও ৮ সপ্তাহ পূর্ণ হবার পর নির্দিষ্ট কেন্দ্রে গিয়ে ২য় ডোজের টিকা গ্রহণ করা যাবে। যারা ২৭ ও ২৮ জানুয়ারি এবং ৭ ফেব্রুয়ারি ১ম ডোজ টিকা নিয়েছেন, তার কোনো এসএমএস না পেলেও নির্ধারিত টিকা কেন্দ্রে টিকার কার্ড নিয়ে এসে ২য় ডোজ টিকা নিতে পারবেন। একই সাথে ১ম ডোজের টিকা প্রদানও চলমান রয়েছে। ১ম ডোজ টিকা নেওয়ার জন্য অনলাইন রেজিস্ট্রেশন করে নির্ধারিত দিনে নির্ধারিত কেন্দ্রে টিকা নিতে হবে। এছাড়াও জরুরি প্রয়োজনে বাইরে গেলে নিয়ম মেনে মাস্ক পরা ও একে অপর থেকে অন্তত ৩ ফুট দূরত্ব বজায় রাখা এবং সাবান-পানি দিয়ে ২০ সেকেন্ড ধরে ঘন ঘন হাত ধোয়ার আহবান জানান।
এদিকে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সকাল থেকে করোনা ২য় ডোজের টিকা দেওয়া হয়। এসময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. সফর উদ্দিন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাদি উর রহিম জাদিদ, উপজেলা আ.লীগ সভাপতি বেনজির আহমদ মানিক, প্রেসক্লাব সভাপতি স্বপন কুমার বর্মন প্রমুখ টিকা নেন।
ছাতক হাসপাতালের নতুন ভবনে করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করে টিকা গ্রহন কার্যক্রম আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন মুহিবুর রহমান মানিক এমপি। পরে উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মামুনুর রহমান, উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা ডা. রাজীব চক্রবর্ত্তী ও ছাতক থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ নাজিম উদ্দিন করোনা টিকার ২য় ডোজ গ্রহণ করেন।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা ডা. রাজীব চক্রবর্ত্তী জানান, করোনা টিকার ২য় ডোজ দেয়া শুরু করা হয়েছে। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টিকা দেয়া কার্যক্রম চলবে। করোনা টিকার ২য় ডোজ গ্রহণের জন্য করোনা টিকার কার্ড ও জাতীয় আইডি কার্ডের ফটো কপি সাথে আনতে হবে। প্রথন দিন ১১৭ জন করোনা টিকার ২য় ডোজ গ্রহণ করেছেন।