ধর্মপাশায় ধর্ষকদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

ধর্মপাশা প্রতিনিধি
ধর্মপাশা উপজেলার বাদশাগঞ্জ পাবলিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে ও আসামীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুর দুইটায় বাদশাগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়সহ বাদশাগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ব্যানারে ঘন্টাব্যাপী এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্থানীয় সুশীল সমাজের ব্যক্তি খায়রুল বশর ঠাকুর খানের পরিচালনায় বক্তব্য দেন বাদশাগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের উপাধ্যক্ষ হাফিজুর রহমান, বাদশাগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম, বাদশাগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক আসাদুজ্জামান, বৌলাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হারুন অর রশিদ, উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ন আহ্বায়ক লুৎফুর রহমান উজ্জ্বল, সাংগঠনিক সম্পাদক তাজ উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।
মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২২ অক্টোবর ওই ছাত্রীর মা-বাবা চিকিৎসাজনিত কাজে ছাত্রীকে বাড়িতে একা রেখে ময়মনসিংহ গিয়েছিলেন। সেই সুযোগে ওইদিন রাতে পাইকুরাটি ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের শফিকুল ইসলামের ছেলে এনামুল কৌশলে ছাত্রীর খালি ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণ করে। আর এ ঘটনার ভিডিও চিত্র ধারণ করে এনামুলের সহযোগীরা। পরে সেই ভিডিও চিত্র ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে একই গ্রামের রমজান মিয়ার ছেলে সৈকত মিয়া ও বাচ্চু মিয়ার ছেলে উদয় ছাত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ছাত্রীর মা-বাবা বাড়ি ফিরে এলেও ছাত্রী তা তার পরিবারকে বিষয়টি জানায়নি। কিন্তু ধর্ষণের ভিডিও চিত্র গত ৫ নভেম্বর ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়লে বিষয়টি ছাত্রীর পরিবারসহ এলাকায় জানাজানি হয়। এর পরদিন পুলিশ সৈকতকে আটক করে। এ ঘটনায় গত সোমবার বিকেলে ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে এনামুল, সৈকত, উদয়সহ ৫ জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন এবং পর্নগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে ধর্মপাশা থানায় মামলা করেন।