ধর্মপাশায় নিখোঁজের ৩ দিন পর মিলল স্কুলছাত্রের লাশ

ধর্মপাশা প্রতিনিধি
ধর্মপাশায় নিখোঁজের তিন দিন পর আসাদুল নামের সাড়ে ছয় বছর বয়সী এক স্কুল ছাত্রের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আসাদুল উপজেলার সদর ইউনিয়নের মেউহারি গ্রামের বাসিন্দা আয়নাল হকের ছেলে ও মেউহারি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্র। গত রোববার বিকেল থেকে আসাদুল নিখোঁজ ছিল। বুধবার স্কুল ছাত্রের বাড়ির পূর্ব দিকে কয়েক শ’ গজ দূরে অবস্থিত একটি ডোবা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
জানা যায়, গত রোববার বিকেল থেকে আসাদুলের পরিবারের লোকজন আসাদুলকে খোঁজে পাচ্ছিল না। এরপর থেকে চলতে থাকে তাকে খোঁজাখোঁজি। কিন্তু তাকে কোথাও পাওয়া যায়নি। ফলে তার পরিবারের লোকজন মঙ্গলবার ধর্মপাশা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি এবং এলাকায় মাইকিং করেন। বুধবার সকাল আটটার দিকে আসাদুলের বাড়ির পূর্বপাশে অবস্থিত ডোবায় একটি হাত ভেসে ওঠতে দেখে স্থানীয় লোকজন। পরে তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করা হয়। খবর পেয়ে সকাল ১১টার দিকে ধর্মপাশা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পরিবারের লোকজনের দাবি আসাদুল সাঁতার জানতো। পানিতে পড়ে তার মৃত্যু হওয়ার কথা নয়। এদিকে বুধবার দুপুরে স্কুলছাত্রের চাচা নুরুল হক বাদী হয়ে ধর্মপাশা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করেছেন।
ধর্মপাশা থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম জানান, স্কুলছাত্রের পরিবারের দাবি হয়তো কেউ তাকে মেরে পানিতে ফেলে দিতে পারে। তবে কীভাবে তার মৃত্যু হয়েছে তা ময়নাতদন্ত ছাড়া বলা সম্ভব নয়। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।