ধর্মপাশায় পিআইসি’র তিন সভাপতি আটক

ধর্মপাশা প্রতিনিধি
হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ ও মেরামত প্রকল্প কাজে গাফিলতির অভিযোগে ধর্মপাশায় তিনটি প্রকল্পের প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি’র (পিআইসি) তিনজন সভাপতিকে আটক করার ৪ ঘণ্টা পর মুচলেখায় মুক্তি দেওয়া হয়েছে। সোমবার দুুপুর ২ টায় উপজেলার চন্দ্রসোনার থাল হাওর থেকে তাঁদের আটক করা হয়।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা কাবিটা বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি সোমবার দুপুর ২ টায় ধর্মপাশা থানার পুলিশসহ উপজেলার চন্দ্রসোনার থাল হাওরের বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ পরিদর্শনে যান। এ সময় ডুবাইল ও মারাদারিয়া   
 বাঁধের মধ্যবর্তী স্থানের দুটি এবং মারাদারিয়া শয়তানখালী বাঁধের মধ্যবর্তী একটি প্রকল্প কাজ পরিদর্শন করেন তাঁরা। তিনটি প্রকল্পেই বাঁধের কাছ থেকে মাটি তোলা, মাটির পরিবর্তে বালু ব্যবহার এবং কাজে ধীরগতি পরিলক্ষিত হওয়ায় ঐসব প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি চান মিয়া, রুবেল মিয়া ও শামসুল আলমকে আটক করা হয়। এছাড়াও পার্শ্ববর্তী আরো দুটি প্রকল্প কাজ পরিদর্শন করেন ইউএনও। এই দুটি প্রকল্প কাজেও গাফিলতি পরিলক্ষিত হয় এবং বাঁধে সংশ্লিষ্ট পিআইসি সভাপতি মোকাব্বির ও  লক্ষন বর্র্মনকে পাননি তিনি। সন্ধ্যা ৬ টার দিকে ইউএনও’র কক্ষে আটককৃত তিনজন পিআইসিকে মুচলেকায় মুক্তি দেওয়া হয়। এর আগে গত ৬ ফেব্রুয়ারি ওই সকল পিআইসকে একই অভিযোগে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছিল।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মামুন খন্দকার জানান, আটককৃত পিআইসির সভাপতিরা কাজের সময়সীমার মধ্যেই কাজ শেষ করবেন বলে মুচলেকা দিলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্যদের জিম্মায় তাদেরকে মুক্তি দেওয়া হয়। বাকি দুটি প্রকল্প কমিটির সভাপতির বিরুদ্ধেও নীতিমালা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।