ধর্মপাশায় বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল স্কুল ছাত্রী

ধর্মপাশা প্রতিনিধি
ধর্মপাশায় বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেয়েছে ৮ম শ্রেণিতে পড়–য়া এক স্কুল ছাত্রী। সোমবার দুপুরে ছাত্রীর গ্রামের মসজিদের ইমাম রহমত উল্লার সাথে এ বিয়ে সম্পন্ন হওয়ার কথা ছিল। ওই ইমামের বাড়ি উপজেলার সুখাইড় রাজাপুর উত্তর ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামে।
ওইদিন দুুপুরে বাল্যবিয়ের বিষয়টি ছাত্রীর এলাকার একজন সচেতন ব্যক্তি স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদেরকে মুঠোফোনে জানান। গণমাধ্যমকর্মীরা বিষয়টি ইউএনও মো. মামুন খন্দকার ও জয়শ্রী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সঞ্জয় রায় চৌধুরীকে অবগত করেন। ইউএনও ইউপি চেয়ারম্যানকে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বলেন। ইউপি চেয়ারম্যান এ সময় উপজেলা সদরে অবস্থান করছিলেন তাই তিনি তাৎক্ষণিকভাবে মুঠোফোনে তার ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের সদস্য তাজ উদ্দিনকে বিয়ে বন্ধে ব্যবস্থা নিতে বলেন।
ওইদিন বিকেল তিনটার দিকে ইউপি সদস্য তাজ উদ্দিন ও জয়শ্রী ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা মানিক তালুকদার বিয়ে বাড়িতে যান এবং বিয়ের আয়োজন দেখতে পান। এ সময় বরযাত্রীরা বিয়ে বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। ইউপি সদস্য ও উদ্যোক্তা ছাত্রী ও বরের পরিবারের লোকজনকে বাল্যবিয়ের কুফল সম্পর্কে অবগত করলে বিয়ে বন্ধ হয়।
জয়শ্রী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সঞ্জয় রায় চৌধুরী বলেন, ‘বাল্যবিয়ের খবর পাওয়ার সাথে সাথে ইউপি সদস্যকে বিয়ে বাড়িতে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করার জন্য বললে তিনি সেখানে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করেন।’
বাল্যবিয়েটি বন্ধ হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মামুন খন্দকার।