ধর্ষণ মামলায় বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কারাগারে

স্টাফ রিপোর্টার
ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা একটি মামলায় সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি হারুন অর রশিদকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। গতকাল সোমবার দুপুরে সুনামগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. জাকির হোসেন এই আদেশ দেন।
প্রসঙ্গত, গত ২৬ সেপ্টেম্বর রাতে বিশ্বম্ভরপুর থানায় হারুন অর রশিদদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেন উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের এক নারী (৩২)। মামলায় তিনি উল্লেখ করেন, হারনুর রশিদ তাকে একটি সেলাই মেশিন দেওয়ার কথা বলেছিলেন। এ জন্য তিনি ২৬ সেপ্টেম্বর দুপুরে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে যান। তখন চেয়ারম্যান তাকে কার্যালয়ের দ্বিতীয় তলার একটি কক্ষে যেতে বলেন। পরে ওই কক্ষে চেয়ারম্যান তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। এঘটনায় রাতেই বিশ্বম্ভরপুর থানায় মামলা দায়ের করেন ওই নারী।
উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ ধর্ষণ মামলায় গতকাল সোমবার আদালতে হাজির হয়ে জামিন নিতে চাইলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। তবে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ এর আগে তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদকে কারাগারে পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সুনামগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) ড. খায়রুল কবির রুমেন।