ধলাই নদীতে ড্রেজারে বালু উত্তোলনের প্রতিবাদে ছাতকে ব্যবসায়ী ও শ্রমিকদের মানববন্ধন

ছাতক প্রতিনিধি
ধলাই নদীতে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন বন্ধের দাবিতে ছাতকে একতা বালু ব্যবসায়ী ও সরবরাহকারী ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমিতির উদ্যোগে মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে বালু ব্যবসায়ী ও উত্তোলনকারী শ্রমিকরা। কোম্পানীগঞ্জের ধলাই নদীতে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের প্রতিবাদে বালু শ্রমিকরা এসব কর্মসূচি পালন করেন।
সোমবার দুপুরে ছাতক থানার সামনে মানববন্ধন এবং পরে বিক্ষোভ মিছিল শেষে সুরমা মার্কেটের সামনে প্রতিবাদ সভায় মিলিত হন তারা।
মানববন্ধনে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অপসারণ, কোম্পানীগঞ্জে নিজস্ব আইন চলবে না, ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন বন্ধ কর-নয়তো বুকে গুলি কর, বালতি-বেলচা ও টুকরী দিয়ে বালু উত্তোলনের অধিকার চাই, আমার বালু-আমার অধিকার, বালতি-বেলচা, টুকরী যার-বালু উত্তোলনের অধিকার তারসহ বিভিন্ন স্লোগান সম্বলিত প্লে-কার্ড বহন করে আন্দোলনকারী শ্রমিকরা।
এদিকে বালু শ্রমিকদের পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি চলাকালে পাথর ব্যবসায়ী মহলের একটি অংশ ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের পক্ষে অবস্থান নেয়াকে কেন্দ্র করে বালু শ্রমিকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।
এসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিষয়টি সমঝোতার মাধ্যমে নিস্পত্তির আশ্বাস দিয়ে উত্তেজিত বালু শ্রমিকদের সান্তনা দেয়ার চেষ্টা করেন ছাতক সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার দুলন মিয়া, ছাতক থানার ওসি আতিকুর রহমান ও পৌর কাউন্সিলর নওসাদ মিয়া।
মানববন্ধনে বিভিন্ন সংগঠনের ব্যানারে ছাতক ও কোম্পানীগঞ্জের বালু ব্যবসায়ী, বারকী নৌকা মালিক, বালু উত্তোলনকারী শ্রমিকরা অংশ নেয়।
পরে সুরমা মার্কেটের সামনে শ্রমিক নেতা শাহ নেওয়াজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, ধলাই নদীর বালু মহালের ইজারাদার ইজারার সকল শর্ত ভঙ্গ করে অবৈধভাবে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন করছে। বালতি, বেলচা ও টুকরী দিয়ে বালু উত্তোলন করতে হবে, ড্রেজার বা কোন প্রকার যন্ত্র ব্যবহার করে বালু উত্তোলন করা যাবে না- ইজারায় এমন শর্ত থাকলেও ইজাদারার শর্ত ভঙ্গ করে অর্ধ শতাধিক ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন করে খেটে খাওয়া শ্রমিকদের অধিকার নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে । যদি ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন বন্ধ না করা হয়, তবে ছাতক-কোম্পানীগঞ্জের বালু শ্রমিকদের নিয়ে আন্দোলনের মাধ্যমে ধলাই নদী বালু মহাল থেকে ড্রেজার বন্ধ করতে বাধ্য করা হবে।
সভায় বক্তব্য রাখেন, শ্রমিক সমছু মিয়া, আলী হোসেন, মঈন উদ্দিন, ছমরু মিয়া, ডালিম মিয়া, সোয়েব হোসেন, খালেদ মিয়া, এখলাছ মিয়া, রহিম উদ্দিন, ফয়ছল আহমদ, হানিফ আলী, দেলোয়ার হোসেন, নিরু বর্ধন, মামুন মিয়া, আলী রাজ, ছাদেক মিয়া প্রমুখ।