ধান সংগ্রহ, স্বচ্ছতার জন্য কৃষকের বাড়ি-জমিতে গিয়ে যাচাই-বাছাই করেছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট

জগন্নাথপুর অফিস
জগন্নাথপুরে কৃষকদের নিকট থেকে বোরো ধান সংগ্রহের তালিকা যাচাই বাছাইয়ের কাজ শুরু হয়েছে।
ধান সংগ্রহে অনিয়ম, দুর্নীতি আর স্বজনপ্রীতি প্রতিরোধে এবার স্বচ্ছতার মাধ্যম প্রকৃত ও প্রান্তিক কৃষকের বাড়ি বাড়ি গিয়ে যাচাই বাচাই করছেন জগন্নাথপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. ইয়াসির আরাফাত।
সোমবার তিনি স্থানীয় কৃষি বিভাগের তালিকা অনুযায়ী উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়ন ও জগন্নাথপুর পৌরসভা এলাকার বিভিন্ন এলাকার বাড়ি বাড়ি এবং জমিতে গিয়ে কৃষকদের এবং ইউনিয়ন ও পৌরসভার সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে সরেজমিন যাচাই বাছাই শুরু করেছেন।
জগন্নাথপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইয়াসির আরাফাত বলেন, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী কৃষকের বাড়িতে এবং জমিতে গিয়ে সরেজমিন যাচাই বাছাই করে কৃষক নির্ধারণ করা হচ্ছে। ভুয়া কার্ড দিয়ে কৃষক হওয়া যাবে না। তাই আমরা যাচাই বাছাইয়ের কাজ শুরু করেছি।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শওকত ওসমান মজুমদার বলেন, আগামী ১১ মে থেকে বোরো ধান সংগ্রহ শুরু করব আমরা। কৃষিকার্ডের মাধ্যমে জগন্নাথপুরের ১টি পৌরসভা ও ৮ ইউনিয়নের দ্ইু হাজার ৫শত’ কৃষকের নামে তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। ২৬ টাকা কেজি দরে একজন প্রান্তিক কৃষকের নিকট থেকে ১ টন, মাঝারি কৃষক ২ টন এবং বড় কৃষকের নিকট থেকে ৩ টন ধান সংগ্রহ করা হবে। ৯ মে লটারির মাধ্যমে কৃষক নির্বাচিত করা হবে।
৩১ আগস্ট পর্যন্ত ধান ক্রয় করা হবে। এবার ২৬০৮ মেট্রিক টন ধান সংগ্রহ করা হবে বলে তিনি জানান।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহফুজুল আলম মাসুম বলেন, আমরা প্রশাসনের পক্ষে থেকে কৃষকদের তালিকা যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। বোরো ধান সংগ্রহে কোন ধরনের অনিয়ম দুর্নীতি সহ্য করা হবে না।