ধারারগাঁওয়ে সুরমা সেতুর স্থান পরিদর্শন

স্টাফ রিপোর্টার
সদর উপজেলার হালুয়ারঘাট-ধারারগাঁও এলাকায় সুরমা নদীর উপর সেতু নির্মাণের জায়গা পরিদর্শন করলেন এলজিইডি’র সিলেট বিভাগীয় পরিচালক আলী হোসেন চৌধুরী। বৃহস্পতিবার সকালে তিনি সেতুর জায়গা পরিদর্শন করতে গিয়ে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে কথা বলেন। স্থানীয় বাসিন্দারা সেতু নির্মাণে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার জোর দাবি জানান। উল্লেখ্য এই সেতু নির্মাণের জন্য পাবলিক সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক ধারাবাহিকভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। মূলত তাঁর উদ্যোগেই সেতু নির্মাণের প্রকৌশলগত দিক পর্যালোচনার জন্য এলজিইডির উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল জায়গা পরিদর্শন করেছেন।
এসময় এলাকাবাসী দ্রুত সেতু নির্মাণের দাবি তোলেন জানান,‘সুরমা নদীর উপর হালুয়ারঘাট-ধারারগাঁও সেতু নির্মাণ হলে সরকারী রাজস্ব বৃদ্ধি পাবে। সদর উপজেলার সুরমা নদীর উত্তরপাড়ের মানুষ, দোয়ারাবাজার, বিশ্বম্ভরপুর, তাহিরপুর উপজেলার মানুষের সহজ সড়ক যোগাযোগ স্থাপন হবে। এছাড়াও ছাতক এবং ধর্মপাশা উপজেলার মানুষের ব্যবসা বাণিজ্য বৃদ্ধি পাবে। সুরমার উত্তরপাড়ে শুল্ক বন্দর স্থাপনের উদ্যোগ রয়েছে।
সেতু নির্মাণের দাবির প্রেক্ষিতে এলজিইডি’র সিলেট বিভাগীয় পরিচালক আলী হোসেন চৌধুরী আশ্বস্থ করে বলেন,‘অপার সম্ভাবনার এই এলাকায় আরো আগে সুরমা নদীর উপর হালুয়ারঘাট-ধারারগাঁও সেতু নির্মাণ হওয়া প্রয়োজন ছিল। সেতু নির্মাণের সাথে এখানকার মানুষের জীবনমানের সম্ভাবনা রয়েছে, তেমনি সরকারী রাজস্বও বৃদ্ধি পাওয়ার সুযোগ রয়েছে। সেতু নির্মাণ হলে মানুষ ঝুঁকি নিয়ে নৌকায় সুরমা নদী পারাপার হতে হবে না। সুরমার উত্তরপাড়ের মানুষ অল্প সময়ে শহরে এসে রোগীদের চিকিৎসা সেবা নিতে পারবেন। শিক্ষার্থীরাও সঠিক সময়ে স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসায় আসা-যাওয়া করতে পারবে। কয়েকটি উপজেলার মানুষের সহজ সড়ক যোগাযোগ স্থাপন হবে। তিনি বলেন,‘সেতু নির্মাণ বিষয়ে আমার পক্ষ থেকে সহযোগিতার কমতি হবে না। আমরা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সেতু নির্মাণের জন্য সকল প্রকার কাজের অগ্রগতি করব।’
পরে এলজিইডি’র সিলেট বিভাগীয় পরিচালক আলী হোসেন চৌধুরী ধারারগাঁও গ্রামের বাসিন্দা পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিকের বাসায় যান এবং মাস্তুরা-মবশ্বির সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা প্রকৌশলী আনোয়ার হোসেন, কুরবাননগর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আবুল বরকত, উত্তর সুরমা উন্নয়ন পরিষদের আহ্বায়ক মো. আব্দুর রব, সদস্য সচিব সাংবাদিক আকরাম উদ্দিন, মো. ইসরাইল মিয়া, নজরুল ইসলাম, আ.লীগ নেতা তাজুল ইসলাম, নাজিম উদ্দিন, শিক্ষার্থী ইমন আহমদসহ শতাধিক স্থানীয় বাসিন্দা।