নলুয়ার হাওরের বাঁধ এলাকায় নতুন করে ভাঙন

আলী আহমদ, জগন্নাথপুর
জগন্নাথপুর উপজেলার নলুয়ার হাওরে এবার নতুন করে কয়েকটি এলাকায় ভাঙন দেখা দিয়েছে। এসব গর্তে এখনও পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) কোন কাজ শুরু করেনি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরেজমিনে ঘুরে দেখে কাজ শুরু করার আশ্বাস দিয়েছেন।
কৃষকরা জানান. গত অকাল বন্যায় জগন্নাথপুর উপজেলার সবকটি হাওরের ফসলরক্ষা বেড়িবাঁধ ভেঙে হাওরের ফসল তলিয়ে গেলে এবার পানি উন্নয়ন বোর্ড নতুন করে পূর্বের পিআইসি অনুযায়ী ফসলরক্ষা বাঁধ নির্মাণ শুরু করে।
সরেজমিনে দেখা যায় নলুয়ার হাওরের দাসনোওয়াগাঁও এলাকায় কুরেরপাড়ে একটি বড় ভাঙন দেখা দিয়েছে। এছাড়াও কলকলিয়া ইউনিয়নের কান্দারগাঁও-নোওয়াগাঁও এলাকার মধ্যবর্তী স্থানে কামারখালী নদীর পাড়ে বড় ধরনের ভাঙন সৃষ্টি হওয়ায় হাওর রক্ষার্থে নতুন করে প্রকল্পভূক্ত  করে ওই ভাঙ্গন বন্ধ করা না হলে ফসলরক্ষা করা অসম্ভব হয়ে পড়বে।
কৃষকদের অভিযোগ ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে হাওরের ফসলরক্ষা বেড়িবাঁধের কাজ শেষ করার কথা থাকলেও এখনো হাওরে পুরোপুরি কাজ শুরু হয়নি। ফলে কৃষকরা ফসল নিয়ে চিন্তিত আছেন।
চিলাউড়া-হলদিপুর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য নান্টু দাশ বলেন, গত বন্যায় নলুয়া হাওরের দাসনাগাঁও এলাকায় কুরেরপাড় নামস্থানে বিশাল আকারে ভেঙে গেছে।  এ ভাঙনে এখনও কাজের কার্যাদেশ পাইনি।
তিনি বলেন, কৃষকদের কথা চিন্তা করে তিনি নিজে অর্থ ব্যয় করে ওই ভাঙনে গত দুইদিন করে কাজ করছেন।
হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলন সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক সিদ্দেকুর রহমান বলেন, নলুয়া হাওরে যেসব স্থানে নতুন করে ভাঙন দেখা দিয়েছে সেসব স্থানে এখনও কোন কাজ শুরু হয়নি। দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হলে হাওরের ফসল রক্ষা করা সম্ভব নয়।
কলকলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হাশিম বলেন, গত বছর এসব এলাকায় কোন পিআইসি ছিল না। এবার ভাঙ্গন দেখা দেয়ায় হাওর রক্ষার্থে নতুন পিআইসি গঠন করে বেড়িবাঁধ নির্মাণের প্রয়োজনীয়তা উল্লেখ করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে পদক্ষেপ নেয়ার অনুরোধ করলে তিনি সরেজমিনে দেখে পিআইসির মাধ্যমে বিকল্পপথে বেড়িবাঁধ নির্মাণ করার কথা বলেছেন।  
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ বলেন, হাওরের ফসল রক্ষায় যেসব এলাকায় নতুন করে গর্ত সৃষ্টি হয়েছে সেইসব এলাকায় বাস্তবতার আলোকে পিআইসি গঠন করা হবে। আবার কিছু কিছু এলাকার অপ্রয়োজনীয় পিআইসি বাদ দেয়ারও পদক্ষেপ চলছে।



আরো খবর