নারীরা জেগে উঠেছে

আকরাম উদ্দিন
বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগ সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সম্মেলন মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। সুনামগঞ্জ পৌর শহরের জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে এই সম্মেলন হয়। বিকাল পাঁচটায় জাতীয় সংগীত পরিবেশনার মধ্য দিয়ে সম্মেলনের কার্যক্রম শুরু হয়।
সম্মেলনের উদ্বোধন করেন সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আপ্তাব উদ্দিন আহমদ। প্রধান অতিথি ছিলেন মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সাফিয়া খাতুন। সম্মেলনে জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের নতুন কমিটির সভাপতি হয়েছেন শামসুন্নাহার বেগম ওরফে শাহানা রব্বানী, সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন হুসনা হুদা। এছাড়াও কমিটির সহ সভাপতি অ্যাড. রিতা বেগম, নাসিমা চৌধুরী, রওশনারা সিদ্দিকা, রওশনা পুতুল, নাজিমা ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কনিজ রেহনুমা রব্বানী ভাষা ও সাদিয়া বখত সুরভীর নাম ঘোষণা করা হয়েছে।
জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ শামসুন্নাহার বেগম ওরফে শাহানা রব্বানীর সভাপতিত্বে সম্মেলন অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম। এ ছাড়াও বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান, মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শিরিন রোকসানা, শিখা চক্রবর্তী ও কামরুন্নেছা হান্নান, কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক দিলরুবা জামান শেলী, শেখ আনারকলি পুতুল, সুরাইয়া বেগম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নীলিমা আক্তার লিলি, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক সৈয়দা রাজিয়া মোস্তফা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক মরিয়ম বিনতে হুসাইন, সহ-আইনবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার সীমা করিম, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শিরিন বেগম, রেবেকা সুলতানা, শাহানাজ হাবিব ও কনা জব্বার।
আলোচনা পর্ব সঞ্চালনা করেন জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের নেত্রী নিগার সুলতানা কেয়া ও সামিনা চৌধুরী।
সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় সম্মেলনের প্রধান অতিথি সাফিয়া খাতুন সুনামগঞ্জ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের নতুন কমিটির সভাপতি হিসেবে শামসুন্নাহার বেগম ওরফে শাহানা ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে হুসনা হুদার নাম ঘোষণা করেন। এক মাসের মধ্যে তাদের ৯১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের নির্দেশ দেওয়া হয়।
সম্মেলনের আলোচনা পর্বে বক্তারা বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বিশ্বের দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। শেখ হাসিনার আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় থাকে তখন দেশের উন্নয়ন হয়, দেশ এগিয়ে যায়, দেশের সম্মান বাড়ে। আর বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় থাকলে হয় লুটপাট-চুরি। তারা এতিমের টাকা চুরি করে খেয়ে ফেলে। তাই দেশের মানুষ আর বিএনপিকে ক্ষমতায় দেখতে চায় না। মানুষ আবার আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় দেখতে চায়।
সম্মেলন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সাফিয়া খাতুন বলেছেন, ‘বাংলাদেশের নারীরা জাগ্রত হয়ে উঠেছে। তাঁরা তাঁদের অধিকার আদায়ে কাজ করতে চায়। আজ সুনামগঞ্জে ২২ বছর পর একটি কমিটি হচ্ছে। গত বছর সুনামগঞ্জে এসে এই কমিটি করার জন্য বলে গিয়েছিলাম। সংগঠনের মাধ্যমে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সাংগঠনিক পদ পরিচয়ে সহজে মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করা যায়। সেই জন্য কমিটি গুরুত্ব সহকারে করতে হবে। আগামী জাতীয় নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত হতে হবে সকলকে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে কমিটিতে কোনো বিএনপি-জামায়াতের কোনো লোক যেন ঢুকতে না পারে এবং পরিবারের সদস্যদের মধ্যে যেন কমিটির সীমাবদ্ধ না থাকে সে দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।’
অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তার বক্তব্যে কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম বলেন, ‘সুনামগঞ্জের মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন আজ পূরণ হয়েছে। সংগঠন একা করা যায় না। সবাইকে নিয়ে সংগঠন করতে হয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংগঠনের কর্মীদের বেশি ভালবাসেন। এ জন্য ত্যাগী কর্মীদের ভালবাসতে হবে সকলে। কোনো কর্মী ছাড়া নেতা হওয়া যায় না। আজ যে কমিটি আমরা ঘোষণা দিচ্ছি, এটার পূর্ণাঙ্গ কমিটি আগামী এক মাসের মধ্যে কেন্দ্রে জমা দিতে হবে। উপজেলা ও ইউনিয়ন কমিটি গঠন করতে হবে ঘরে ঘরে গিয়ে কর্মীদের সাথে আলোচনা করে। জেলায় বসে নয়। কমিটিতে কে পদ পেলেন, আর কে পেলেন না, সেটা বড় কথা নয়। কাজে প্রমাণ করতে হবে। আওয়ামী লীগ সরকারের হাতকে শক্তিশালী করতে সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।’