নির্বাচনী মাঠে সক্রিয় বর্তমান সাংসদরা

বিশেষ প্রতিনিধি
নির্বাচনী গণসংযোগ শুরু হয়েছে সুনামগঞ্জের ৫ টি আসনেই। এক্ষেত্রে এগিয়ে রয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্যরাই। বিএনপির সম্ভ্যাব্য প্রার্থীদের গণসংযোগে খুব একটা দেখা যাচ্ছে না। ঈদের পর থেকে সরকারদলীয় অন্য আগ্রহীদের তুলনায় বর্তমান সংসদ সদস্যরাই গণসংযোগে তৎপর রয়েছেন বেশি।
সোমবার পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি এলাকা চষে বেড়িয়েছেন সুনামগঞ্জ-৩ (জগন্নাথপুর-দক্ষিণ সুনামগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি। পবিত্র হজ্ব পালন শেষে দেশে ফিরে গত শুক্র, শনি ও রোববার নির্বাচনী এলাকার অনেক হাট বাজারে ও গ্রামে গণসংযোগ, পথসভা, মতবিনিময় এবং সমাবেশ করেছেন সরকার দলীয় এই সংসদ সদস্য।
শুক্রবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত দক্ষিণ সুনামগঞ্জের দামুধরতপি পয়েন্ট, পঞ্চগ্রাম, চিকারকান্দি, পাগলাবাজার, উজানীগাঁও পয়েন্ট, জয়কলস পয়েন্ট, নোয়াখালী বাজার, গণিগঞ্জ বাজার, পাথারিয়া বাজার এবং নিজের গ্রাম ডুংরিয়ায় গণসংযোগ এবং ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন এমএ মান্নান। নোয়াখালীতে গণসংযোগের সময় সড়ক দুর্ঘটনায় বোগলারখাড়া গ্রামের নিহত রাহেল আহমেদের পরিবারের সদস্যদের গিয়ে সমবেদনাও জানিয়েছেন তিনি। রাতে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা সদর শান্তিগঞ্জ বাজারের নিজ বাসভবনে দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে মতবিনিময় সভায় মিলিত হন।
শনিবার সকালে জগন্নাথপুর আব্দুস সামাদ আজাদ অডিটোরিয়ামে সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ, জঙ্গিবাদ, মাদক ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে মসজিদের ইমাম, শিক্ষক ও নাগরিক সমাজের করণীয় শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন। পরে চিলাউড়া বাজারে গণসংযোগ, বিদ্যুৎ লাইন উদ্বোধন এবং জনসভায় বক্তব্য দেন তিনি।
রোববার সকালে সুনামগঞ্জ শহরে জন্মাষ্টমী আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদান শেষে দিনভর দক্ষিণ সুনামগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগে ছিলেন তিনি। এসময় দক্ষিণ সুনামগঞ্জের সিচনী পয়েন্ট, আক্তাপাড়া বাজার, ছয়হারা পয়েন্ট, আক্তাপাড়া বাজার ও ভমভমি বাজারে গণসংযোগ করেছেন তিনি। দুপুরে হালদারকান্দি সপ্তগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে বিকালে দরগাপাশা ইউনিয়নের বাংলাবাজারে দলীয় নেতা-কর্মীদের আয়োজনে সমাবেশে বক্তব্য দেন তিনি।
সংসদ সদস্য এমএ মান্নান বললেন,‘আমি সুযোগ পেলেই আমার নির্বাচনী এলাকার মানুষদের কাছে আসার চেষ্টা করেছি। সামনের দিনগুলোতে আরও বেশি থাকার চেষ্টা করবো। গত ৫ বছরে ভাল-খারাপ কী করেছি জনগণের কাছ থেকে জানার চেষ্টা করবো, দলের এবং নৌকা প্রতীকের জন্য সহযোগিতাও চাইবো।’
সুনামগঞ্জ-৫ ( ছাতক- দোয়ারা) আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিকও গণসংযোগ বাড়িয়ে দিয়েছেন। ঈদের পর ২৬ আগস্টে ছাতক উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভার প্রস্তুতি সভায় অংশগ্রহণ। ২৭ আগস্ট খুরমা উত্তর ইউনিয়নে গণসংযোগ, ২৮ আগস্ট দোয়ারাবাজারের সুরমা ইউনিয়নের টেংরা এবং ছাতক উপজেলার ভাতগাঁও ইউনিয়নের হায়দরপুরে গণসংযোগ করেন। ২৯ আগস্ট ছাতক উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মরহুম ডা. হারিছ আলীর স্মরণসভায় অংশগ্রহণ, ৩০ আগস্ট ছাতকের দক্ষিণ খুরমা ইউনিয়নের ১১ গ্রামে বিদ্যুৎ সংযোগের উদ্বোধন, ৩১ আগস্ট ছৈলা আফজলাবাদের ১০ গ্রামে বিদ্যুৎ সংযোগের উদ্বোধন, পহেলা সেপ্টেম্বর দোয়ারাবাজারে সংগঠনের বিশেষ বর্ধিত সভায় উপস্থিতি, ২ সেপ্টেম্বর ছাতক উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিতি এবং সোমবার ছাতক সদর ইউনিয়নের আন্দারগাঁও গ্রামে গণসংযোগ এবং গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবন উদ্বোধন। মঙ্গলবার ছাতক উপজেলা গণমিলনায়তনে সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ, জঙ্গিবাদ, মাদক ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে মসজিদের ইমাম, শিক্ষক ও নাগরিক সমাজের করণীয় শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন তিনি।
সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক বললেন,‘জনগণকেই আমি ক্ষমতার উৎস্য মনে করি। নির্বাচনী এলাকার গ্রামে-গঞ্জে সারাবছরই কাটাই। আগামী দিনগুলোও সেভাবেই কাটাব।’
সুনামগঞ্জ-১ (জামালগঞ্জ-ধর্মপাশা-তাহিরপুর) আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন ২৩ আগস্ট থেকে ৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জামালগঞ্জ উপজেলার বেহেলী, ফেনারবাঁক, জামালগঞ্জ সদর, ভীমখালী ইউনিয়ন, ধর্মপাশার দক্ষিণ বংশিকুন্ডা, সুখাইড়-রাজাপুর, চামরদানী ও মধ্যনগর এবং তাহিরপুরের দক্ষিণ শ্রীপুরে গণসংযোগ করেন।
সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন জানিয়েছেন, তাঁর লাগাতার এই গণসংযোগ আগামী নির্বাচন পর্যন্ত চলবে।
সুনামগঞ্জ সদর-বিশ্বম্ভরপুর আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ্ ঈদের পর থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত প্রতিদিন নির্বাচনী এলাকায় গণসংযোগ ও মতবিনিময় করে কাটিয়েছেন।
২৩ আগস্ট থেকে সোমবার পর্যন্ত তাঁর কর্মসূচির মধ্যে ছিল নিজ বাসভবনে মোল্লাপাড়া, কাঠইর, লক্ষণশ্রী ইউপি জাপা নেতা-কর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়। বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা গণমিলনায়তনে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত কৃতী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিতি, সদর উপজেলা জাপা’র সভাপতি ও সম্পাদকদের নিয়ে বৈঠক, মাইজবাড়ী গ্রামে উঠোন বৈঠক, রঙ্গারচর ইউনিয়নের বৃন্দাবননগরে সড়ক উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন ও জনসভা, গৌরারংয়ের কয়েকটি গ্রামে বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন, কাঠইর, সুরমা ও লক্ষণশ্রী ইউপিতে গণসংযোগ, বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ধনপুরে গণসংযোগ এবং ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন, মোহনপুর, ফতেহ্পুর ইউনিয়নে জনসভা ও বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন এবং শহরে জন্মাষ্টমীর কর্মসূচিতে অতিথি হিসাবে বক্তব্য প্রদান।
সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ্ জানিয়েছেন, ‘সংসদে উপস্থিতির সময় ছাড়া বাকী সময়টুকু নির্বাচনী এলাকাতেই কাটাই আমি। আগামী নির্বাচন পর্যন্ত লাগাতার গণসংযোগের কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।’
মঙ্গলবার দিরাইয়ে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে সপ্তাহব্যাপি গণসংযোগ শুরু করেছেন দিরাই-শাল্লার সরকার দলীয় সংসদ সদস্য ড. জয়া সেন গুপ্তা।