নৌকা ও ধানের শীষের তীব্র লড়াইয়ের আভাস

সুব্রত খোকন, শাল্লা
আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-২ (দিরাই-শাল্লা) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মোট ছয় জন প্রার্থী। এরা হলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রয়াত সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের স্ত্রী ড. জয়া সেনগুপ্তা, বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত নাছির চৌধুরী, গণতন্ত্রী পার্টি মনোনীত গুলজার আহমদ, কমিউনিষ্ট পার্টি মনোনীত নিরঞ্জন দাস খোকন, ইসলামী শাসনতন্ত্র পার্টি মনোনীত মাও. আব্দুল হাই, বাংলাদেশ মুসলিমলীগ মনোনীত রানা হাসান চৌধুরী। তবে ড. জয়া সেনগুপ্ত ও নাছির চৌধুরীর মধ্যে মূল প্রতিদ্বন্ধিতা হবে। দুজনের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আভাস দিয়েছেন স্থানীয় নেতাকর্মী ও ভোটাররা।
বিগত ৩/৪ দিন দিরাই-শাল্লার বিভিন্ন ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা যায় প্রতীক বরাদ্দের পর থেকেই দিরাই-শাল্লার দ্বিধাবিভক্ত আওয়ামীলীগ সব মতভেদ ভুলে এবং মনোনয়ন বঞ্চিত দশ জন প্রার্থী ঐক্য হয়ে মাঠে নামায় ড. জয়া সেনগুপ্তার নির্বাচনী মাঠ সরগরম হয়ে উঠে, অন্যদিকে বিএনপির নাছির চৌধুরীও তার অনুসারিদের নিয়ে জোরেশোরে মাঠে নামেন। এতে দুই প্রার্থীর মধ্যে তীব্র লড়াইয়ের আভাস পাওয়া গেছে। বর্ষীয়ান এই দুই রাজনীতিবিদ ভোটের মাঠে দিনরাত খেটে যাচ্ছেন।
নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে- দুটি উপজেলার একটি পৌরসভা ও ১৩টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত এই আসনে মোট ভোটার ২,৫০,৭০০ জন। এর মধ্যে দিরাই উপজেলার ভোটার সংখ্যা ১,৭১,২৮২ জন তন্মধ্যে পুরুষ ৮৫,৩২৫ জন, মহিলা ৮৫,৯৪৭ জন এবং শাল্লা উপজেলার ভোটার সংখ্যা ৭৯,৪১৮ জন তন্মধ্যে পুরুষ ৩৯,৬০১ জন, মহিলা ৩৯,৮১৭ জন। আগামী ৩০ ডিসেম্বর দিরাইর ৭৪টি এবং শাল্লার ৩৬টি কেন্দ্রসহ মোট ১১০টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।
গত তিন দিন শাল্লা ও দিরাই উপজেলা আওয়ামীলীগ ও বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের অন্তত ৫০ জন নেতাকর্মী এবং দুই উপজেলার বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের অন্তত ৪০/৫০ জন নেতাকর্মীর সাথে নির্বাচনের বিষয়ে কথা হয় এ প্রতিবেদকের।
আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা সবাই অভিন্ন সুরে বলেন- অতীতের সব দ্বিধাদ্বন্দ্ব ভুলে এবং মনোনয়ন বঞ্চিত প্রার্থীরা সবাই ঐক্যবদ্ধ ভাবে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী ড. জয়া সেনগুপ্তার পক্ষে মাঠে নেমেছেন। বিগত দিনের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আমরা ভোটারদের দ্বারে দ্বারে নৌকার জন্য ভোট প্রার্থনা করছি। সাধারণ ভোটাররা আমাদের ডাকে সারা দিয়ে সততার মূর্ত প্রতীক ড. জয়া সেনগুপ্তাকে জয়যুক্ত করবেন বলে আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস।
অন্যদিকে বিএনপি’র নেতাকর্মীরাও জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী বলে মত ব্যক্ত করেছেন।