পরলোকে নিখিল তালুকদার

জামালগঞ্জ প্রতিনিধি
জামালগঞ্জের প্রগতিশীল শিক্ষক ও সফল পিতা নিখিল তালুকদার পরলোক গমন করেছেন। ফুসফুস ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে সোমবার বিকেল ৫টা ৩৩ মিনিটের সময় সিলেটে তিনি মারা যান। তাঁর বাড়ি জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়নের সাচনা গ্রামে। তাঁর বয়স হয়েছিল ৭২ বছর। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, চার ছেলেমেয়ে, পুত্রবধূ, জামাতা, নাতি—নাতনিসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। গুণী এই শিক্ষক ছেলেমেয়েদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে সুপ্রতিষ্ঠিত করে গেছেন। তাঁর মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
জানা যায়, ১৯৫০ সালে সুনামগঞ্জ জেলার পুরান শাখাইতি গ্রামে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা নির্মলেন্দু তালুকদার ও মাতা কনকপ্রভা তালুকদার। সহধর্মিনী মমতা তালুকদার। চার সন্তানের জনক ছিলেন তিনি। স্বাধীনতা আন্দোলনে ছিলেন মাঠ পর্যায়ের একজন মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক। আশির দশকে তিনি শিক্ষকতা পেশায় যুক্ত হন। ভাটিপাড়া বাইলেটারেল হাই স্কুলে শিক্ষকতার মাধ্যমে তার পেশাজীবন শুরু। পরবর্তীতে ১৯৮৯ সালের ২২ জানুয়ারি সাচ্না বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রতিষ্ঠাতা ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসাবে বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠায় যুক্ত হন।
জীবদ্দশায় তিনি লেখালেখিতে যুক্ত ছিলেন। ভাটিবৃন্ত নামে তাঁর একটি যৌথ কাব্যগ্রন্থ রয়েছে। তিনি কমরেড বরুণ রায় স্মৃতি পরিষদের উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। চিন্তা চেতনায় অসাম্প্রদায়িক নিখিল তালুকদার অন্যায়ের বিরুদ্ধে আপোষহীন বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর ছিলেন। এ জন্য অনেক লাঞ্চনা বঞ্চনা সহ্য করতে হয়েছে তাঁকে।
নিখিল তালুকদারের দুই ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে। বড় ছেলে ইঞ্জিনিয়ার নীলাদ্রি শেখর তালুকদার নোবেল বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ায়, বড় পুত্রবধূ স্ত্রী ডা. লগ্ন সেন অস্ট্রেলিয়ার জন অব গড হসপিটালে, ছোট ছেলে ডা. নীলাক্ষী শেখর তালুকদার নিউটন সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে, ছোট পুত্রবধূ ডা. অনিন্দিতা দাস সিলেটের দক্ষিণ সুরমা হাসপাতালে কর্মরত আছেন। এছাড়া বড় মেয়ে নিপা তালুকদার শাহজালাল ইউনিভার্সিটি থেকে মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন। তাঁর স্বামী জ্যোতির্ময় সরকার তপু সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের এএসপি এবং ছোট মেয়ে রূপা তালুকদার ঢাকা ইউনিভার্সিটি থেকে বিবিএ সম্পন্ন করে আমেরিকায় পিএইচডি গবেষণারত স্বামী আনম পাল অপুর সাথে বসবাস করছেন বলে জানা গেছে।
তাঁর মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন, ক্ষেত—মজুর সমিতির কেন্দ্রীয় সদস্য কমরেড অজিত লাল রায়, সুনামগঞ্জ জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সাবেক সভাপতি চিত্তরঞ্জন তালুকদার, জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি অ্যাডভোকেট এনাম আহমদ, কমরেড বরুণ রায় স্মৃতি পরিষদের সভাপতি বিদ্যুৎ জ্যোতি চক্রবত্তর্ী, সহ সভাপতি মো. আলী আমজাদ ও সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান সিরাজ।