পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পরিচালক পদের নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার
ছাতকে পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির পরিচালক পদের নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শনিবার দুপুরে শহরের একটি রেস্টুরেন্ট’র কনফারেন্স হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী পীর মোহাম্মদ আলী মিলন।
লিখিত বক্তব্য তিনি, সকল ভোটারদের ছবিযুক্ত ভোটার পরিচয়পত্র প্রদানের ব্যবস্থা করে ঘোষিত নির্বাচনের তফসিল বাতিলের দাবি জানান।
তিনি বলেন, ঘোষিত তফসিল মোতাবেক আগামী ১১ জুন সমিতির পরিচালক পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। কিন্তু ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আজ্ঞাবহ পছন্দের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে নীল নকশা বা প্রহসনের নির্বাচন করার পরিকল্পনা এঁটেছে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আওয়াতাধীন ২ নম্বর ওয়ার্ডের নির্বাচন কমিশন। এই নীল নকশার নির্বাচন বাতিলের জন্য সরকারের বিদ্যুৎ ও জ¦ালানী মন্ত্রণালয়ের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
লিখিত বক্তব্যে মিলন আরো বলেন, সুনামগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আওয়াতাধীন ২ নম্বর ওয়ার্ডে (ছাতক) প্রায় ২৫ হাজার ভোটার থাকলেও সমিতির কর্মকর্তাদের একটি অংশ ও নির্বাচন কমিশন তাদের আজ্ঞাবহ পছন্দের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে কোন কোন এলাকার ভোটারদের ছবি ছাড়া ভোটার পরিচয়পত্র প্রদান করেছেন। যা মোট ভোটারের প্রায় অর্ধেক । অথচ কমিশন থেকে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে ভোটার তালিকায় নাম থাকলেও ছবিযুক্ত সদস্য সনদ সঙ্গে না আনলে কোন সদস্য ভোটধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন না। কমিশন ও সমিতির এমন দ্বৈত নীতির কারণে বিপাকে পড়েছেন পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি থেকে ছবিবিহীন পরিচয়ত্র পাওয়া সদস্যরা