পাগলায় ভুয়া ফেসবুক আইডি থেকে অপপ্রচার ও মিথ্যাচার

ইয়াকুব শাহরিয়ার, দ. সুনামগঞ্জ
দক্ষিণ সুনামগঞ্জের পাগলায় ভুয়া নাম ব্যবহার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে একাধিক আইডি থেকে বিভিন্ন ব্যক্তির নামে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
পাগলা এলাকার রাজনীতিবিদ, শিক্ষক, সমাজ সচেতন শিক্ষানুরাগী, ক্রীড়াব্যক্তিত্ব এমনকি জনপ্রতিনিধিদের নামেও মিথ্যাচার করে তাদের মানহানি করা হচ্ছে। পাশাপাশি এসব ভুয়া ফেইসবুক একাউন্ট থেকে অতি কৌশলে উসকানি দেওয়া হচ্ছে সাম্প্রদায়িকতার, গোত্রবিবাদের। এসব আইডি থেকে পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের বিভিন্ন সম্মানীয় পরিবারের লোকজনের ব্যক্তিগত দুর্বলতা ও বিভিন্ন গ্রামের অভ্যন্তরিণ বিষয় নিয়েও উসকানিমূলক পোস্ট করা হচ্ছে। এসব বিষয় নিয়ে পাগলা এলাকার সচেতন মানুষের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। চলছে বেনামা বা ভূয়া আইডির নামে আইনী মোকাবিলার প্রস্তুতিও। ভুয়া ফেইসবুক নিয়ে আশংকা বিরাজ করছে সকল মহলে। বেনামে কোনো আইডির ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট দেখলে অধিকাংশরাই এক্সেপ্ট করছেন না সেই রিকুয়েস্ট। এসব ঘটনার প্রতিকার চাইছেন এলাকাবাসী।
পাগলার স্থানীয় ব্যক্তিদের সাথে আলোচনা করে জানা যায়, ‘সত্য বাবা’, ‘পাগলা বাজার প্রতিদিন সংবাদ’, ‘পাগলা বাজার’, মহাকাব্য ও ‘নেতা মোদের কালাম ভাই’ এসব ভুয়া ফেইসবুক একাউন্ট থেকে নিয়মিত এলাকার প্রায় সকল গণ্যমান্য লোকজনের ব্যক্তিগত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্য পোস্ট করেছে। যার অধিকাংশই মিথ্যা ও সম্মানহানিকর। এই মিথ্যা প্রচারণায় বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হচ্ছে অনেককে। এছাড়াও হিন্দু-মুসলমাদের মধ্যে উসকানি, গোত্রগত উসকানি ও মিথ্যা তথ্য দিয়ে সমাজে বিশৃঙ্খলা বাধিয়ে রাখার একটি মাধ্যম হিসেবে কাজ করছে এসব ভুয়া একাউন্ট। এ চিত্র তো শুধু পাগলাবাজার এলাকায়ই নয়, সমস্ত উপজেলায়ও এমন একাধিক আইডি থেকে নানান মিথ্যাচার করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন অনেকেই। এসব ঘটনার প্রতিকার পেতে থানায় একটি মামলা করারও প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন তারা।
ক্রীড়ামোদী আতিকুর রহমান আতিক বলেন, ‘আমরা চাই দ্রুত এসব কর্মকান্ড বন্ধ হোক। একজনের সাথে আরেকজনের বিরোধ থাকতে পারে, তাই বলে এভাবে ফেইসবুকে সম্মানহানি করা অপরাধ। এ অপরাধের দমন চাই। সকলকে সম্মিলিতভাবে এসবের প্রতিরোধে কাজ করতে হবে। প্রয়োজনবোধে আইনী ব্যবস্থায় যেতে হবে।’
পূর্ব পাগলা ইউপি চেয়ারম্যান নূরুল হক বলেন, ‘সম্প্রতি দেখেছি সত্য বাবা নামের একটি আইডি থেকে সাম্প্রদায়িক উসকানিমূলক পোস্ট করা হয়েছে। আমরা মামলা করার প্রস্তুতিও নিচ্ছি। ইতোমধ্যে বিষয়টি নিয়ে থানায় কথাও বলেছি। এটি অবশ্যই জঘন্য ধরণের অপরাধ। এর প্রতিকার করা জরুরি। এরকম আরো কয়েকটি একাউন্টের নামে মামলা দ্রুতই করা হবে।’
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম বলেন, ‘আমার নামেও কে বা কারা একটা একাউন্ট করে ভুল তথ্য দিয়ে লেখে। এসব বিষয় আমি জানি না, এটি নিন্দনীয়। এর প্রতিকার জরুরি।’