পানি নামাতে কাটা হলো শাল্লার মাউতির বাঁধ

স্টাফ রিপোর্টার
দিরাই-শাল্লা এবং কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলার বৃহৎ ছায়ার হাওরে পানি নামাতে দেড়ফুট গভীর করা  হয়েছে উপজেলার সুলতানপুর-ঘুঙ্গিয়াগাঁওয়ের মধ্যে থাকা মাউতির বাঁধ। দৈনিক সমকাল ও স্থানীয় দৈনিক সুনামগঞ্জের খবরে সংবাদ প্রকাশের পর রোববার   
দুপুরে শাল্লা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহা. মাসুম বিল্লাহ্ মাউতির বাঁধে গিয়ে হাওরপাড়ের গ্রামগুলোর কৃষকগণকে বাঁধের দেড় থেকে – দুই ফুট গভীর করে কেটে দেবার অনুমতি দেন। পরে কৃষকরা বাঁধের গভীরতা বাড়ানোর জন্য দেড় থেকে দুই ফুট কেটে দেন।
হাওরপাড়ের কৃষক আঙ্গাউড়ার কৃষক লালন মোহন দাস বললেন,‘আমরা খুশি, এখন ২ দিনেই হাওরের বেশিরভাগ অংশের পানি নেমে যাবে।’
শাল্লা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহা. মাসুম বিল্লাহ্ বলেন,‘পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর চাষাবাদের সুবিধার্থে পানি নিস্কাশনের জন্য হাওরপাড়ের কৃষকদের নিয়ে ও কিছু শ্রমিক লাগিয়ে মাউতির বাঁধ দেড় থেকে দুই ফুট গভীর করে কেটে দেওয়া হয়েছে। দ্রুত পানি নামছে, প্রয়োজনে আরো গভীর করা হবে।’