পিডিবির ঠিকাদারের কাণ্ড- বিদ্যুতের খুঁটির স্তুপ ঢেকে দিল মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্য

বিন্দু তালুকদার
মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ সুনামগঞ্জের তৎকালীন ছাত্রনেতা তালেব উদ্দিনের স্মৃতি ধরে রাখতে সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের আহসানমারা সেতু এলাকায় নির্মিত ‘মুক্তিযোদ্ধা ভাস্কর্য’ গত কিছু দিন ধরে দেখা যাচ্ছে না।
সুনামগঞ্জ পিডিবির ঠিকাদার বিদ্যুতের খুঁটি রাস্তার পাশে রাখতে গিয়ে মুক্তিযোদ্ধা ভাস্কর্যের সামনেই স্তুপ করে ফেলে রেখেছেন। উচু করে খুঁিট রাখার কারণে এখন রাস্তা থেকে সেই ভাস্কর্য দেখার কোন সুযোগ নেই।
বিদ্যুৎ বিভাগের ঠিকাদার খামখেয়ালীপনায় ক্ষুব্ধ মুক্তিযোদ্ধাসহ অনেকেই। পিডিবির নির্বাহী প্রকৌশলীকে তাগিদ দেয়ার পরও সরানো হচ্ছে না খুঁিট। কিছু দিন আগে বিষয়টি নজরে আসায় পিডিবির নির্বাহী প্রকৌশলীকে দ্রুত খুঁটি সরানোর অনুরোধ করেছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন। কিন্তু এখনও সরানো হয়নি সেই খুঁটি।
জানা যায়, ২০১৫ সালের শুরুর দিকে ভাস্কর্যটি নির্মাণের কাজ শুরু হয়। ওই বছরের ১ মার্চ তৎকালীন জেলা পরিষদের তৎকালীন প্রশাসক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির এটি উদ্বোধন করেন। ভাস্কর্যে একজন মুক্তিযোদ্ধাকে জাতীয় পতাকা হাতে এগিয়ে যাওয়ার দৃশ্য ফুটে উঠেছে। মানুষের অবয়ব ইস্পাতের পাইপ দিয়ে তৈরি। জাতীয় পতাকার মাঝখানের লাল বৃত্তের ভেতর স্বাধীন বাংলাদেশের মানচিত্র।
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আতাউর রহমান বলেন,‘এই ভাস্কর্যটি মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বহন করে। কিন্তু বিদ্যুৎ বিভাগের সংশ্লিষ্টদের খামখেয়ালীপনার বিষয়টি খুবই দৃষ্টিকটু। ’
জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন বলেন,‘ বিদ্যুৎ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীকে দ্রুত খুঁটি অপসারণ করার জন্য বলা হয়েছে। প্রকৌশলী জানিয়েছেন ঠিকাদারকে তাগিদ দেয়া হয়েছে।’
জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি নুরুল হুদা মুকুট বলেন,‘জেলা পরিষদের অর্থায়নে নির্মিত মুক্তিযোদ্ধা ভাস্কর্যের সামনে বিদ্যুতের খুঁটি ফেলে রাখা খুবই দৃষ্টিকটু কাজ। খুঁিটগুলো দ্রুত সরানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’
এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ আবাসিক বিদ্যুৎ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সেলিমের সাথে কথা বলতে চাইলে তাঁকে পাওয়া যায়নি। সরকারি মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে অফিস থেকে জানানো হয় তিনি ঢাকায় আছেন।
উপ সহকারি প্রকৌশলী আব্দুল আলিম বলেন,‘নির্বাহী প্রকৌশলী স্যার ঢাকায় আছেন, আজ বুধবার সুনামগঞ্জে আসবেন। বিদ্যুতের খুঁিট মুক্তিযোদ্ধা ভাস্কর্যের সামনে রাখার বিষয়টি আমার জানা নেই। ’