পূর্ব শত্রুতার জের ধরে চলাচলের রাস্তায় বেড়া

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
দক্ষিণ সুনামগঞ্জের পাগলায় পারিবারিক ও পূর্ব শত্রুতার জেরে বাড়ির উঠান দিয়ে চলাচলের রাস্তায় বাঁশের বেড়া দিয়ে এক পক্ষকে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে অপরপক্ষ। ঘটনাটি শুক্রবার বিকালে পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের শত্রুমর্দন (দাসবাড়ি) গ্রামে ঘটেছে। এ ব্যাপারে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগও দাখিল করেছে একপক্ষ।
জানা যায়, শত্রুমর্দন (দাসবাড়ি) গ্রামে প্রতিবেশী ছোরাব আলীর ছেলে জাহাঙ্গীর আলী (২৮) ও মৃত নূর আলীর ছেলে গাড়ি চালক শহিদ মিয়ার সাথে বেশ কিছু দিন ধরে পারিবারিক কলহ চলে আসছিল একই পাড়ার মৃত আবদুস সোবহানের ছেলে রিফাত আলী (৬০)’র। শুক্রবার বিকালে উভয় পক্ষের মাঝে কথা কাটাকাটি হলে একপর্যায়ে তা হাতাহাতিতে রূপ নিয়ে দু’পক্ষের মাঝে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষে রিফাত আলীর পক্ষে আহত হন রিফাত আলীর স্ত্রী আছরবি বেগম (৪৫), মেয়ে নাছিমা বেগম (২৩) ও ফজর আলীর স্ত্রী ছায়াতুন নেছা।
অপরদিকে জাহাঙ্গীর আলীর পক্ষে আহত হন জাহাঙ্গীর আলীর মা শাহেরা বেগম (৫০)।
রিফাত আলীর পক্ষের গুরুতর আহত ছায়াতুন নেছাকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন। রিফাত আলী ও শহিদ মিয়া একই পাড়ার হওয়ায় শহিদ মিয়ার বাড়ির উঠান দিয়েই চলাচল করতে হয় রিফাত আলী পক্ষকে। এই সংঘর্ষের জের ধরে শুক্রবারেই বাড়ির উঠানের মাথায় বাঁশের বেড়া দিয়ে প্রতিপক্ষের পথ আগলে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেন শহিদ মিয়ার স্ত্রী। এই ঘটনায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানায় হাজির হয়ে একটি অভিযোগ দাখিল করেছেন রিফাত আলী।
প্রতিবেশী শাহ আলম ও মো. আজাদ হোসেন বলেন, ‘এসব দ্বন্দ্ব একদমই ভালো না। আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি বিষয়টিকে সালিশের মাধ্যমে একটি সুষ্ঠু সমাধান দেওয়ার।’
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘আমরা একটি অভিযোগ পেয়েছি। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’