পৌরসভায় হঠাৎ বিপুল সংখ্যক পুলিশ

স্টাফ রিপোর্টার
সুনামগঞ্জ পৌরসভার কার্যালয়ে মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৫টায় হঠাৎ করে বিপুল সংখ্যক পুলিশের উপস্থিতি সংশ্লিষ্টদের মধ্যে রহস্যের সৃষ্টি করে।
সুনামগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র হোসেন আহমদ রাসেল বলেন, মেয়র মহোদয় অফিসের কাজে ঢাকায় থাকায় আমিই তাঁর পক্ষে দায়িত্ব পালন করছি। বিকাল সাড়ে ৫টায় হঠাৎ করেই পৌরসভার একজন চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী ফোন করে জানান, পৌরসভায় বিপুল সংখ্যক পুলিশ এসে উপস্থিত হয়েছেন। কেন তারা এসেছেন জানার জন্য পুলিশ সুপারসহ উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের ফোন দিলেও তারা ফোন রিসিভ করেননি। আমার বিরুদ্ধে একটি মামলা রয়েছে,
এই মামলায় উচ্চ আদালত থেকে আমি জামিনে রয়েছি। বিষয়টি আইনী ভাবে জানতে চাইবো আমরা।
পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী মীর মোশারফ হোসেন বলেন, পৌরসভার নৈশ্য প্রহরী তাকে জানিয়েছেন, ৬০-৭০ জন পুলিশ পৌরভবনে এসেছেন। তারা কাউন্সিলার কক্ষ কেন খোলা রাখা হয়েছে, জানতে চেয়েছেন। নৈশ্য প্রহরী সঙ্গে সঙ্গেই বলেছেন, এখনই কাউন্সিলার কক্ষের দরজা বন্ধ করে দিচ্ছি। খবর পেয়ে এসে দেখি, তারা সবাই চলে গেছেন। কেন পুলিশের সদস্যরা আসলেন, জিজ্ঞেস করার সুযোগ পাইনি।
পৌর কাউন্সিলার আহমেদ নূর বলেন, নৈশ্য প্রহরী তাকে জানিয়েছেন, বিপুল সংখ্যক পুলিশ হঠাৎ করেই পৌরভবনে যায়। বিষয়টি শুনে তারা হতবাক হয়েছেন। পৌর মেয়র অফিসের কাজে ঢাকায় রয়েছেন। পৌরসভায় পুলিশ আসার আগে মেয়র মহোদয়ের অনুমতি নিয়ে আসলে ভালো হতো।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সুনামগঞ্জ সদর থানার ওসি মোহাম্মদ শহীদূর রহমান বলেন, একটি বিশেষ বিষয় জেনে পুলিশ পৌর ভবনে গিয়েছিল। এর বেশি তিনি বলতে চাননি।
মুঠোফোন রিসিভ না করায় এ প্রসঙ্গে পৌরমেয়র নাদের বখত’র বক্তব্য জানা যায়নি।