পৌর মার্কেটে আবর্জনা স্তূপ

স্টাফ রিপোর্টার
সুনামগঞ্জের পৌর শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ময়লা ও আবর্জনার স্তূপ জমে রয়েছে। জনসচেতনতার অভাব আর দায়িত্ববানদের অবহেলায় এই অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে বলে জানা গেছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, পৌর শহরের পৌর মার্কেটের মাঝখানে আর্বজনার স্তুপ জমে আছে। জমে থাকা ময়লা থেকে পচা দুর্গন্ধ বের হচ্ছে। এসব জমে থাকা ময়লা আর্বজনা পরিবেশ দূষণ করছে। মার্কেট অপরিষ্কার ও ময়লা আর্বজনার কারণে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদের নাক চেপে আসা যাওয়া করতে হয়।
পৌর বিপনি মার্কেটের পাঞ্জেরী লাইব্রেরি’র মালিক মো.রিপন শেখ বলেন, জেলা শহরে গুরুত্বপূর্ণ মার্কেট পৌরবিপণি। কিন্তু পৌরসভা থেকে এখানকার ময়লা আবর্জনা ঠিকমতো পরিষ্কার করা হয় না। মার্কেটের ভিতরে ঢুকলে দুর্গন্ধে হাঁটা যায় না। এতে করে দোকানি ও ক্রেতাগণ নানা সমস্যার সম্মুখীন হয়। পুরো মার্কেটে একটা ডাস্টবিনও নেই ময়লা ফেলার।
সিয়াম টেলিকম সার্ভিস আহসান হাবিব জানান, ময়লা পরিষ্কার হয় না। চার থেকে ৫ মাস পর এসে একবার ময়লা পরিষ্কার করে। আমরা দোকানিরা টাকা দিয়ে ময়লা পরিষ্কার করে থাকি। তারা সামনে থেকে দায়সারা ভাবে নামমাত্র ময়লা আবর্জনা নিয়ে চলে যায়। ভেতরটা ভালভাবে পরিষ্কার করে না।
এ বিষয়ে পৌর বিপণি মার্কেটের ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম বললেন, ঠিকমতো ময়লা আবর্জনা পরিস্কার করা হয় না। আমরা তাগিদ দেই, তখন পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা এসে ময়লা আবর্জনা নিয়ে যায়।
তিনি বলেন, এই মার্কেটে বই পুস্তকের দোকানই বেশি। শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরাই এসব ক্রয় করতে আসেন। ময়লা আবর্জনা থাকলে, নোংরা থাকলে ক্রেতাগণ আসতে অনীহা দেখায়। আমরা আশা করব যেন কর্তৃপক্ষ বিষয়টি গুরুত্ব দেন, নিয়মিত মার্কেটের আবর্জনা পরিস্কার করে দেন।
পৌর সভার নির্বাহী প্রকৌশলী কালি কৃষ্ণ পাল বললেন, আমি পরিচ্ছন্ন কর্মীদের বলে দেব, জরুরি ভিত্তিতে আবর্জনা পরিস্কার করে দেবে।