প্রতিবাদ

সুপ্রিয় গৌরারং ইউনিয়ন ও সদর উপজেলাবাসী। আমি মোঃ শওকত আলী। পিতা রমিজ উল্লা, গ্রাম নিধিরচর, ইউপি গৌরারং, থানা ও জেলা সুনামগঞ্জ। বিগত ৩১ মার্চ তারিখে আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন পত্র পএিকায় যে সংবাদ প্রচার করা হয়েছে, তা সত্য নয়। আমি গৌরারং ইউনিয়নবাসীসহ এলাকার জনগণের জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি, বিগত ৩১ মার্চে আমাকে গ্রেপ্তার করে আমার বিরুদ্ধে সুনামগঞ্জ সদর থানায় যে মামলা করা হয়েছে (মামলা নম্বর ৩৪, তারিখ ৩১.০৩.২০২০) তা ছিল সম্পুর্ণ মিথ্যা পূর্ব পরিকল্পিত ও উদ্দেশ্যে প্রণোদিত। আমি গৌরারং ইউনিয়ন নির্বাচনে বিগত দুই দুইবার অংশ গ্রহণ করে আপনাদের ভালবাসা অর্জন করেছি এবং আগামী নির্বাচনেও আমি অংশ গ্রহণ করতে চাই। অতীতে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন দুর্যোগে আমি গৌরারং ইউনিয়নের গরীব, দুঃখী ও মেহনতী মানুষের পাশে ছিলাম এবং সাহায্য সহযোগিতা করেছি। এবারও করোনা দুর্যোগে গরীব ও অসহায় মানুষদের সাহায্য করার জন্য আমার ব্যক্তিগত তহবিল হতে ঘটনার দুই দিন আগে ৩০ বস্তা চাল ক্রয় করি। চাল কিনে রাখার ঘর না থাকায় বলেছিলাম দুই দিন পরে নেব। এই সুযোগে আমার শত্রুপক্ষের লোকজন যারা বিগত নির্বাচনে আমার প্রতিদ্বন্দ্বি ছিল এবং আগামী নির্বাচনে যারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে, তারা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন ও আমার জনপ্রিয়তা নষ্ট করার অসৎ উদ্দেশ্য ছিল। আমি প্লাস্টিকের বস্তায় থাকা গায়ে সুপার ফ্রেস লিখা বস্তার চাল ক্রয় করি। চাল নিয়ে আসার পথে পুলিশ চাল আটক করে। পরে ডিলার বিপ্লব দাসকে প্রলোভন দেখিয়ে তার দোকান থেকে খাদ্য অধিদপ্তরের খালি বস্তা আনিয়া এই চাল ডিলারের বলিয়া আমাকে মিথ্যা মামলা দিয়ে ফাঁসানো হয়। শত্রুপক্ষের যে বা যারা ডিলার বিপ্লব দাসকে বিভিন্ন বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়েছে। বিপ্লব দাসের মোবাইল কল রেকর্ডে তার প্রমাণ পাওয়া যাবে। তদন্তকারী কর্মকর্তা বিষয়টি সঠিকভাবে তদন্ত করলে কে বা কারা ঘটনাটি সাজিয়েছে, তা বের হয়ে আসবে। আমি রাস্ট্রদ্রোহী কোন কাজে কোনদিনই জড়িত ছিলাম না বা আমার বিরুদ্ধে অতীতে কোনদিন কোন প্রকার অভিযোগ ছিল না। এই চাল মাননীয় সংসদ সদস্যের বা রাস্ট্রীয় কোন অনুদান বা রাস্ট্রীয় কোন সম্পদ ছিল না। ইহা ছিল আমার সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত টাকায় কেনা চাল। যারা অতি উৎসাহি হয়ে ফেইসবুক সহ বিভিন্ন যোগাযোগ মাধ্যমে অপ্রচার করিয়া আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করিয়াছে। আমি এর তীব্র প্রতিবাদ নিন্দা জানাই। আমি কারামুক্তির পর সংবাদপত্রের মাধ্যমে গৌরারং ইউনিয়নবাসীসহ সকলকে সত্য ঘটনা জানানোর জন্য এই বিজ্ঞাপন দেওয়া জরুরি মনে করেছি। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন। সত্যের যেন জয় হয়।
(বিজ্ঞাপন)