প্রশাসনের নির্ধারিত স্থানে সবজি বাজার স্থানান্তরের নির্দেশ, হাট বন্ধ করে দেয়ার হুমকি ব্যবসায়ীদের

জগন্নাথপুর অফিস
করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জগন্নাথপুর পৌরশহরের সদরের জগন্নাথপুর বাজার থেকে সবজি বাজার সরিয়ে প্রশাসনের নির্ধারিত স্থানে সবজি বাজার স্থানান্তরের নির্দেশ নিয়েছে প্রশাসন। তবে সবজি ব্যবসায়ীরা জানিয়েছে, তাঁরা তাঁদের নির্ধারিত বাজার ছেড়ে অন্যস্থানে যাবেন না। প্রয়োজনে সবজি বাজার বন্ধ করে দেয়া হবে। সোমবার বিকেলে তাঁদের নির্ধারিত বাজারে সবজি বেচাকেনা করতে দেখা গেছে।
জানা যায়, করোনার সংক্রমন এড়াতে স্থানীয় প্রশাসনের নির্দেশে গত ২৪ মার্চ দুপুর থেকে অনিদিষ্টকালের জন্য ঔষধ ও নিত্যপন্যের দোকান ছাড়া অন্যান্য দোকানপাট বন্ধ করে দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। লোক সমাগমও কমে গেছে। তবে সবজি বাজারে সামাজিক দূরত্ব কমছে না। স্থানীয় প্রশাসন করোনা সংক্রমন প্রতিরোধে শহরের নলজুর নদীর পাড় ঘেঁষা জগন্নাথপুরের প্রধান সবজি বাজারটি ইকড়ছই হারুনুর রশিদ হিরণ মিয়া স্টেডিয়ামে হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত নেন। সিদ্ধান্ত মোতাবেক আজ সকালে নতুন সবজি বাজারের স্থান নির্ধারিত করে বিষয়টি সকালেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে জগন্নাথপুর বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাহির উদ্দিন সবজি ব্যবসায়ীদের জানান, প্রশাসনিক নির্দেশনা অনুয়ায়ী এখন থেকে নতুন স্থানে সবজি বাজার হবে। সেখানে সবজি বাজার নেয়ার জন্য আহবান জানান।
সবজি ব্যবসায়ীর সঙ্গে আলাপকালে তাঁরা জানান, নতুন স্থানে ব্যবসায়ীরা সবজির দোকান নেবেন না। নতুন জায়গায় গেলে সবজিগুলো নষ্ট হবে যাবে। করোনা প্রতিরোধে মানুষের ভীড় কমাতে সবজি বেচাকেনার জন্য সীমিত সময় নির্ধারিত করে প্রশাসনের তদারকির মাধ্যমে ব্যবসার সুযোগ দেয়ার দাবী জানান। অন্যথায় সবজি বাজার বন্ধ করে দেয়া হবে। তবুও নতুন স্থানে যাবেন না ব্যবসায়ীরা।
সবজি বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি তাজুল উল্লাহ বলেন, নতুন স্থানে সবজি ব্যবসা করা যাবে না। সবজিগুলো গরমে নষ্ট হয়ে যাবে। সেখানে কোন নিরাপত্তা নেই। নতুন জায়গায় কেউ যেতে রাজি নয়। প্রয়োজনে আমরা সবজি বাজার বন্ধ করে দেব। এরচেয়ে প্রশাসনিক তদারকির মাধ্যমে সীমিত সময়ের মধ্যে সবজি বেচাকেনার সুযোগ তাদেরকে দেয়ার জন্য তিনি দাবী জানান।
জগন্নাথপুর বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাহির উদ্দিন বলেন, প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত আমি সবজি ব্যবসায়ীদের জানিয়েছি। ব্যবসায়ীরা এতে রাজি নয়। তাঁরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হবে বলে জানান।
জগন্নাথপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, সবজি বাজারে মানুষের ভীড় থাকে বেশি। এজেন্য সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দের মতামতের ভিত্তিত্বে সবজি বাজার সরিয়ে নতুন জায়গায় নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। আমাদের সবার নিরাপদের জন্য এই সিদ্ধান্ত ব্যবসায়ীদের মানা উচিৎ। ব্যবসায়ীদের সবধরনের নিরাপত্তা পুলিশ প্রশাসন নেবে।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহফুজুল আলম মাসুম বলেন, করোনার হাত থেকে সবাইকে সুরক্ষিত রাখতে জগন্নাথপুর বাজারে ব্যবসায়ী সংগঠনের মতামতের ভিত্তিত্বে সবজি বাজার হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ব্যবসায়ীরা যাতে সুশৃঙ্খলভাবে সবজি বেচাকেনা করতে পারবেন। আমরা তাদের সেই ব্যবস্থা করে দেব।