প.প. ভলান্টিয়ার নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ

দোয়ারাবাজার প্রতিনিধি
দোয়ারাবাজার উপজেলায় পরিবার পরিকল্পনার পেইড ফেয়ার ভলান্টিয়ার পদে নিয়োগ পরীক্ষায় ভুল তথ্য দিয়ে চাকরি পাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিয়োগ পত্রে শর্ত ছিল প্রার্থীর বয়স ৩০ বছর, যে ওয়ার্ডের নাম উল্লেখ করে পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিবেন তাকে সেই ওয়ার্ডের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে এবং বিবাহিত মহিলার বেলায় ২ সন্তানের জননী হতে হবে।
জানা যায়, গত ৮ ডিসেম্বর উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে ভাইবা পরীক্ষা দিয়ে এ পদে নির্বাচিত হন সুরমা ইউনিয়নের গিরিশনগর গ্রামের লুৎফুর রহমানের স্ত্রী রুহেলা বেগম। কিন্তু নিয়োগে অনিয়ম করা হয়েছে বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন বোগলাবাজার ইউনিয়নের বাগান বাড়ি গ্রামের শেফালি আক্তার। তিনি অভিযোগে বলেন বোগলাবাজার ইউনিয়নের ১ ক ইউনিটে একটি পদের জন্য পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন ৪ জন প্রার্থী। আর ১খ ইউনিটে ২টি পদের জন্য পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন ১১ জন প্রার্থী। কিন্তু এখানে ১এর ক ইউনিটে প্রার্থী বাছাই করা হয় ২জন আর ১এর খ ইউনিটে প্রার্থী বাছাই করা হয় ১জন। অভিযোগের উল্লেখ করা হয় রুহেলা বেগম ভুল তথ্য দিয়ে চাকরির নিয়োগ পেয়েছেন। নিয়োগের শর্তাবলি অনুযায়ী ভোটার আইডি কার্ড জালসহ ব্যক্তিগত বিভিন্ন তথ্য জালিয়াতি করে নিয়োগ পেয়েছেন রুহেলা বেগম।
একই ইউনিয়নের শেফালী আক্তার অভিযোগে উল্লেখ করেন রুহেলা আক্তারের তিন সন্তানও রয়েছে এবং তার জন্ম ১২ মার্চ ১৯৮২ ইং অনুযায়ী তার বয়স চলতি বছরে প্রায় ৩৬ বছর।
তবে অভিযুক্ত রুহেলা বেগমের সাথে যোগাযোগ করা যায়নি।
পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা রিপন চন্দ্র দাস বলেন, শেফালি আক্তারের অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাচন অফিসের তথ্য অনুযায়ী তদন্ত করে রুহেলা বেগমের ভোটার আইডি কার্ডে ভুল তথ্য পাওয়া গেছে। তার নিয়োগ বাতিলের জন্য অফিসিয়ালী ব্যবস্থা নেয়া হবে। তদন্ত রিপোর্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে জমা দিয়েছি।



আরো খবর