ফাজিলুপুর ও ধোপাজান মহালে পরিবশে বিধ্বংসী কর্মকান্ড বন্ধের দাবি

ফাজিলুপুর ও ধোপাজান মহালে পরিবশে বিধ্বংসী অবৈধ কর্মকান্ড স্থায়ী ভাবে বন্ধ করার দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে সুনামগঞ্জ পরিবেশ আন্দোলন। বুধবার সুনামগঞ্জ পরিবেশ আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক সাকিল আহমদ স্বাক্ষরিত এই প্রেস বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়,তাহিরপুর উপজেলার ফাজিরপুর ও সুনামগঞ্জ সদর-বিশ্বম্ভরপুর উপজেলাধীন ধোপাজান বালি পাথর উত্তোলনে পরিবেশ বিধ্বংসী চক্রের চলমান অবৈধ কর্মকান্ডের ফলে এলাকার ফসলী জমি, রাস্তাঘাট, ঘরবাড়ি ও বিভিন্ন স্থাপনা সহ এলাকার পরিবেশ চরম ভাবে ধ্বংসের সম্মুখিন হয়ে পড়েছে।
জেলা প্রশাসন ২০১৮ সালের ৪ ডিসেম্বর ৭ দিনের মধ্যে নদীর স্তুপীকৃত বালি-পাথর অপসারনের জন্য মাইকিং করে নির্দেশনা জারি করেন। কিন্তু মুনাফা লোভী চক্র প্রশাসনের নির্দেশনার প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে ডলুরা, খাইয়ারগাঁও, আদাং, মথুরকান্দি, জিনাপুর, কুচগাঁও, রতারগাঁও সহ ধোপাজান মহালের নদী ভাঙ্গনকৃত স্থানে এলাকার পরিবেশ প্রতিবেশ ধ্বংস করে ড্রেজার/বোমা মেশিন দিয়ে উত্তোলন করছে। পরিবেশ বিধ্বংসী এমন কর্মকান্ডের প্রতিবাদে বিভিন্ন পরিবেশ বাদী সংগঠন সচেতন মহল বারকি শ্রমিক সংগঠন সাংবাদিক সমাজ বিগত ৮/১০ বৎসর যাবৎ নিয়মিত আবেদন, নিবেদন, সভা, সমাবেশ ও সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছেন।
বিবৃতিদাতারা বর্তমান উদ্ভুত এ পরিস্থিতিতে এলাকার জনগণের জানমাল ও পরিবেশ রক্ষার্থে টাস্কফোর্স গঠন করে নিয়মিত অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে অবৈধ কর্মকান্ড স্থায়ী ভাবে বন্ধ করার জন্য দাবি জানান।
বিবৃতি প্রদান করেন সুনামগঞ্জ পরিবেশ আন্দোলনের প্রধান উপদেষ্টা অ্যাড. মফচ্ছির মিয়া, পরিবেশ আন্দোলনের উপদেষ্টা ও সনাক সুনামগঞ্জ জেলা সভাপতি গোলাম কিবরিয়া, উপদেষ্টা ও কৃষক লীগের আহ্বায়ক আব্দুর কাদির শান্তি মিয়া, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি ও পরিবেশ আন্দোলনের উপদেষ্টা ফৌজি আরা শাম্মি, পরিবেশ আন্দোলন সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি একেএম আবু নাছার, সহ-সভাপতি মফিজ উদ্দিন, মোজাম্মেল হক, সাধারণ সম্পাদক মো. সাকিল আহমদ, সহ-সম্পাদক প্রভাষক ফজলুল করিম সাইদ, সহ-সম্পাদক প্রভাষক দুলাল মিয়া, সহ-সম্পাদক প্রভাষক শাহিনুর ইসলাম, সাংবাদিক জসিম উদ্দিন, সাংবাদিক আমিনুল হক, সাংবাদিক অরুন চক্রবর্তী, সাংবাদিক শাহরিয়ার সুমন প্রমুখ।
প্রেস বিজ্ঞপ্তি