- সুনামগঞ্জের খবর » আঁধারচেরা আলোর ঝলক - http://sunamganjerkhobor.com -

ফারুক মিয়া হত্যাকাণ্ড- ছাতকে আ.লীগের প্রতিবাদ সভা

ছাতক প্রতিনিধি
ছাতকে আওয়ামীলীগ নেতা ফারুক মিয়ার খুনীদের গ্রেফতারের দাবিতে ও সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, ছাতক পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক, আবরু মিয়া তালুকদার ও জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক শামীম আহমদ চৌধুরীকে কটাক্ষ করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মঙ্গলবার বিকেলে বিক্ষোভ মিছিল শেষে জাউয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকায় প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
জাউয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে খিদ্রাকাপন এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়ে জাউয়া বাজার অভিমুখে রওয়ানা হলে জাউয়ায় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে মিছিলটি পুলিশের বাধার মুখে পড়ে। এ সময় পুলিশের সাথে আওয়ামীলীগ নেতাদের বাক-বিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে বিক্ষোভকারীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে বাজারে আসা লোকজন ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে আতংক। পড়ে উপস্থিত নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়ে আসলে স্কুল সংলগ্ন এলাকায় প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
জাউয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রেজা মিয়া তালুকদারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, আওয়ামীলীগ নেতা ফারুক মিয়ার খুনীদের রক্ষা করতে একটি কুচক্রি মহল শুরু থেকেই বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। এ মহলটি রবিবার মিছিলের নামে জাউয়ায় সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, ছাতক পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী, ছাতক উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক আবরু মিয়া তালুকদার ও জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক শামীম আহমদ চৌধুরীকে কটাক্ষ করে বক্তব্য দিয়েছে।
বক্তারা হুশিয়ার করে বলেন, যতই ষড়যন্ত্র হোক, ফারুক মিয়া হত্যাকান্ডের মূল হোতা ইউপি চেয়ারম্যান বিলাল আহমদকে রক্ষা করা যাবে না। পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচিতে পুলিশী বাধার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন বক্তারা।
সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য দেওয়ান আবুল কালাম মাস্টার, শাহীন মিয়া তালুকদার, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম সম্পাদক আহবাব মিয়া তালুকদার সাজু, আওয়ামী লীগ নেতা সোহরাব আলী, রুহুল আমিন তালুকদার, আরশ আলী খান ভাসানী, আজাদ মিয়া মেম্বার, শফিকুল হক মহাজন, জলকদর আলম, সমছু খা, আব্দুর রহিম, নিহত ফারুক মিয়ার ভাই মানিক মিয়া, আকিক মিয়া, আওয়ামী লীগ নেতা সিরাজ মিয়া, আব্দুস ছালাম, সামছুল ইসলাম, ফয়জুল ইসলাম, যুবলীগ নেতা লায়েক মিয়া তালুকদার, সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক সাইফুল আলম, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা রেজাউল করিম রেজা, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা লাল মিয়া, নূর মিয়া, মাহবুব এলাহী সেলিম, জয়নাল আবেদীন, লেচন মিয়া, কামাল মিয়া তালুকদার, মহিতুজ্জামান তালুকদার, মুক্তাদির আলী, প্রবাসী ফয়জুল হক, যুবলীগ নেতা নজরুল ইসলাম, জিয়াউর রহমান, বিপ্লব এষ, জাবের আহমদ, ছদু মিয়া, আমির হোসেন, কয়েছ আহমদ, কদর আলী, আতাউর রহমান, সায়েস্থা মিয়া, মুসলিম আলী, জালূ মিয়া, জাবেদ তালুকদার, মিনহাজ, মুজাহিদ আলী, সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ আহমদ, সিলেট জেলা ছাত্রলীগ নেতা আতাউল গনি সানি, ছাত্রলীগ নেতা মিনহাজ খান, জামিল হক, জাহাঙ্গির আলম, আইন উদ্দিন, রুবেল মিয়া, শাহীন মিয়া, তায়েব খান, সাজ্জাদ মিয়া, সুলতান আহমদ, রাব্বী তালুকদার, মুহিবুর রহমান, মাছুম আহমদ, সুজন মিয়া, শিপু, শাহজাহান, সোহাগ, ফয়ছল, রাফি, সুফিয়ান, আরমান, তুহিন, পাপ্পু, হাবিবুর রহমান, মারুফ আহমদ, জাকার, বদরুল, মুরাদ, পল্লব, বিকাশ, ইসলাম উদ্দিন প্রমুখ।

  • [১]