বাঁশের সাঁকোতে দুর্ভোগ

আকরাম উদ্দিন
সদর উপজেলার গৌরারং ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে সোনাপুর বেদেপল্লীর একটি সাঁকো রয়েছে। প্রতিদিন এই সাঁকোর উপর দিয়ে ৫ গ্রামের মানুষ যাতায়াত করে থাকেন। কিন্তু ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করায় প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানান এলাকাবাসী। স্থানীয়রা বেদেপল্লীর এই সাঁকোর খালে মাটি ভরাট করে সড়ক নির্মাণ অথবা সেতু নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন।
প্রতিদিন সোনাপুর, বেদেপল্লী, মনিপুরহাটী, লালপুর ও ভাদেরটেক গ্রামের মানুষ এই সাঁকো দিয়ে যাতায়াত করে থাকেন।
এলাকার বাসিন্দা নিজাম উদ্দিন, জনি মিয়া, হাবিবুল ইসলাম, মিঠুন মিয়াসহ আরও অনেকে জানান,‘এই খালের উপর দিয়ে যাতায়াত করতে সাঁকো ছাড়া কোনো বিকল্প ব্যবস্থা নেই। তাই সাঁকোর পরিবর্তে এখানে সেতু নির্মাণ হলে মানুষকে ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করতে হতো না। প্রায়ই যাতায়াতকারীরা এখানে দুর্ঘটনায় কবলিত হন।
সোনাপুর বেদেপল্লী ও আশপাশ এলাকায় রয়েছে একাধিক প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মসজিদ। প্রতিদিন ব্যবসায়ী, শিক্ষার্থী, মসজিদের মুসল্লিসহ নানা শ্রেণীপেশার মানুষজন এই সাঁকো দিয়ে যাতায়াত করে থাকেন। রোগীদের হাসপাতালে বা চিকিৎসালয়ে নিয়ে আসতে স্থানীয় বাসিন্দারা পড়েন চরম ভোগান্তিতে। তাই খালের উপর সেতু নির্মাণ বা মাটি ভরাট করে সড়ক নির্মাণের দাবি জানান তাঁরা।
এলাকার বাসিন্দা হাজী আকুল আলী বলেন,‘আমাদের এলাকার কয়েকটি গ্রামের মানুষের ভোগান্তি কমাতে খালের উপর সেতু বা সড়ক নির্মাণের দাবি জানাই।’
গৌরারং ইউপি সদস্য মমিন মিয়া বলেন,‘সোনাপুর বেদেপল্লীর ঈদগাহের পাশে খালের উপর সেতু বা খালে মাটি ভরাট করে যদি সড়ক নির্মাণ করা হয়, তবে এলাকার মানুষ সহজে যাতায়াত করতে পারবেন।’
গৌরারং ইউপি চেয়ারম্যান মো. ফুল মিয়া বলেন,‘সোনাপুর বেদেপল্লী এলাকায় খালের উপর সাঁকো দিয়ে যাতায়াত করতে মানুষের চরম ভোগান্তি হয়। এবার বরাদ্দ পেলে সাঁকো এলাকায় এই খালে মাটি ভরাট করে সড়ক নির্মাণ করে দেয়ার পরিকল্পনা আছে। এতে মানুষের ভোগান্তি অনেকটা লাঘব হবে।’