বাধ্য হয়েই শিশুদের পথে নামতে হয়

স্টাফ রিপোর্টার
সুনামগঞ্জে বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবসের আলোচনায় বক্তারা বলেছেন, প্রতিটি শিশু রাষ্ট্রের সম্পদ। তাদের আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তোলা পরিবারের যেমন, তেমনি রাষ্ট্রেরও দায়িত্ব। বাধ্য হয়েই শিশুরা কাজে যায়, এর অন্যতম কারণ হলো দারিদ্রতা। পরিবার, রাষ্ট্র যখন তাকে তার মৌলিক অধিকার দিতে পারে না, তার জীবন যখন সংকটে পড়ে, তখনই শিশুদের পথে নামতে হয়। এক সময় তাদের নিরাপদ ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে যায়।
গত মঙ্গলবার সকালে সুনামগঞ্জে বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস পালন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বক্তারা। সুনামগঞ্জ পৌর শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শিশুদের নিয় কাজ করা ‘স্বপ্নডানা’ নামের একটি সামাজিক সংগঠন এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দাবি-দাওয়া সম্বলিত ফেস্টুন নিয়ে দাঁড়ায় শিশুরা। স্বাক্ষর সংগ্রহ করা হয় তাদের অধিকারের পক্ষে। শ্রমজীবী শিশুরা তাদের দুঃখ-কষ্ট আর জীবনসংগ্রামের কথা তুলে ধরে। অনুষ্ঠান আয়োজনে সহযোগিতা করে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ওয়ার্ল্ড ভিশন, সুনামগঞ্জে শিশুদের সংগঠন ন্যাশনাল চিলড্রেন টাস্কফোর্স (এনসিটিএফ)।
বিশিষ্ট নারীনেত্রী শীলা রায়ের সভাপতিত্বে ও স্বপ্নডানার নির্বাহী পরিচালক জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় আলোচনা পর্বে বক্ত্যব্য দেন সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ পরিমল কান্তি দে, জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি চিত্তরঞ্জন তালুকদার, প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক অ্যাডভোকেট খলিল রহমান, জেলা শিশুবিষয়ক কর্মকর্তা বাদল চন্দ্র বর্মন, ওয়ার্ল্ড ভিশনের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক বিভুদান বিশ্বাস, সমাজকর্মী আবদুল মোতালেব, দৈনিক ইত্তেফাকের জেলা প্রতিনিধি মো. বোরহান উদ্দিন, জেলা যুব ইউনিয়নের সভাপতি মো. আবু তাহের মিয়া, স্বপ্নডানার পরিচালক পুলক রাজ, শিশুসংগঠক লাকী সরকার, সুবিধাবঞ্চিত শিশু গোলাম রসুল, রফিকুল ইসলাম ও আলী রাজ।