বাম রাজনীতির প্রবাদপুরুষ ছিলেন বরুণ রায়

স্টাফ রিপোর্টার
কমরেড বরুণ রায়ের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে ৩ দিনব্যাপী আয়োজনের ২য় দিন আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বুধবার বিকাল ৪টা থেকে পৌরসভার মুক্তমঞ্চে নৃত্য এবং গানের ফাঁকে ফাঁকে চলে আলোচনা। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন শিক্ষাবিদ পরিমল কান্তি দে ।
জেলা উদীচীর সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম’র পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন কমরেড প্রসূন কান্তি রায় (বরুণ রায়) এর সহধর্মিনী এবং জেলা উদীচীর সভাপতি শীলা রায়, জেলা সিপিবি’র সাবেক সভাপতি অধ্যাপক চিত্তরঞ্জন তালুকদার, প্রগতি লেখক সংঘের সভাপতি নির্মল ভট্টাচার্য, লেখক সুখেন্দু সেন, বরুণ রায় স্মৃতি সংসদের সাধারণ সম্পাদক রমেন্দ্র কুমার দে মিন্টু, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি গৌরি ভট্টাচার্য, প্রাক্তন শিক্ষক মানব চৌধুরী, কমরেড বরুণ রায় জন্মশতবর্ষ উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব অ্যাড. এনাম আহমদ, জেলা মহিলা পরিষদের সহ সভাপতি সঞ্চিতা চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক শরীফা আশ্রাফী, সাংগঠনিক সম্পাদক পাঞ্চালি চৌধুরী, জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি সাইদুর রহমান আসাদ প্রমুখ।
আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, কমরেড বরুণ রায় ভাটি বাংলার বাম রাজনীতির প্রবাদপুরুষ ছিলেন। তিনি ছিলেন একজন অসাম্প্রদায়িক ও আলোকিত মানুষ। শোষণহীন সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই করেছেন জীবনভর। ত্যাগের রাজনীতিতে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবেন তিনি। মানুষকে ভালোবেসে, মানুষের মুক্তির জন্য যুদ্ধে নেমে সারা জীবন যুদ্ধেই কেটেছে তাঁর। জীবনের ১৪টি বছর কাটিয়েছেন নির্জন কারাবাসে।