বালিকান্দি কেন্দ্রে আ.লীগ জাপা সমর্থকদের সংঘর্ষ, আহত ৩

স্টাফ রিপোর্টার
সুনামগঞ্জের সুরমা ইউনিয়নের বালিকান্দি কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় ৩ জন আহত হয়েছে। রোববার সকাল ১০ টায় এই ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষের সময় একঘণ্টা ভোটগ্রহণ বন্ধ ছিল। ফের সংঘর্ষের আশংকায় ওখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন হয়। পরে ভোটগ্রহণ শুরু হয়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সুরমা ইউনিয়নের বালিকান্দি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণকালে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মো. আব্দুস ছাত্তার ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী সিরাজ মিয়ার সমর্থকদের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে দুই পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এসময় ভোটাররা দৌড়াদৌড়ি শুরু করেন ভোট গ্রহণ স্থগিত ঘোষণা করা হয়। পরে র‌্যাব, পুলিশ ও বিজিবি ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
আওয়ামী লীগ প্রার্থী মো. আব্দুস ছাত্তার বলেন, ইউপি সদস্য প্রার্থী মানিক মিয়া ও গোলাম হোসেনের সমর্থকদের মধ্যে ঝামেলা হয়েছে। পরে জাতীয় পার্টির প্রার্থী সিরাজ মিয়ার লোকজন আমার কর্মীদের মারপিঠ করেছে। পুলিশসহ আইন প্রয়োগকারী অন্যান্য বাহিনীর লোকজন আমার বাড়িতে এসেও ভাংচুর করেছে। এসময় দুইঘণ্টা ভোট গ্রহণ হয় নি, ভোটাররা দৌড়ে বাড়ি ঘরে চলে যায়।
জাপার প্রার্থী সিরাজ মিয়া বললেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী আব্দুস ছাত্তারের ছেলে জয়নাল ও হেলালের নেতৃত্বে তার লোকজন আমার এজেন্টদের মারপিঠ করে বের করে দেয়। এই নিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এক ঘণ্টা ভোটগ্রহণ হয় নি। ভোটাররা কেন্দ্র ছেড়ে চলে যায়। পরে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার লোকজন এসে ভোটগ্রহণ শুরু করেন।
জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, সুরমা ইউনিয়নের বালিকান্দি কেন্দ্রে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধায় কিছুক্ষণ ভোটগ্রহণ বন্ধ ছিল। পরে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়েছে। ভোট শান্তিপূর্ণভাবে চলছে।