বিদ্যুৎ বিভাগের কাণ্ড

স্টাফ রিপোর্টার
বিদ্যুৎ বিভাগের কাণ্ডজ্ঞানহীন আচরণে সোমবার দুপুর থেকেই ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে সুনামগঞ্জের প্রায় ৩০ হাজার গ্রাহককে। সুনামগঞ্জ বিদ্যুৎ বিভাগের লাইনে দিরাই-শাল্লার বিদ্যুতের লাইন যুক্ত করায় পুরো জেলাবাসীকে এই দুর্ভোগ পোহাতে হয়।
বৃহস্পতিবার রাত থেকে সুনামগঞ্জের নতুন পাওয়ার গ্রীড স্টেশন পরীক্ষামূলক ভাবে চালু হয়। রাত ১০ টায় সুনামগঞ্জ বিদ্যুৎ বিভাগ ও দিরাই বিদ্যুৎ বিভাগের প্রায় ৩০ হাজার গ্রাহক যুক্ত হন নতুন পাওয়ার গ্রীড স্টেশনের সঙ্গে। সুনামগঞ্জের নতুন পাওয়ার গ্রীড স্টেশন ৬০ থেকে ৭৮ এমবিএ (৫৪ থেকে ৭০ মেগাওয়াট) পর্যন্ত বিদ্যুৎ ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন।
নতুন পাওয়ার গ্রীড স্টেশন থেকে বৃহস্পতিবার রাতে দিরাই-শাল্লা ফিডার এবং সুনামগঞ্জ শহর ও শহরতলির ফিডার আলাদা আলাদাভাবে সংযোগ দেওয়া হয়। সোমবার দুপুরে দিরাই-শাল্লার ফিডার ১৩২ কেভি থেকে বিচ্ছিন্ন করে সুনামগঞ্জ বিদ্যুৎ বিভাগের ৩৩ কেভিতে যুক্ত করা হয়। দিরাই-শাল্লার এই লাইন সুনামগঞ্জের সঙ্গে যুক্ত হবার পর থেকে সুনামগঞ্জ শহর ও শহরতলির সব কয়টি ফিডারে অন্তত ৫ বার বিদ্যুৎ আসা যাওয়া করতে থাকে। সুনামগঞ্জের সকল গ্রাহক কমপক্ষে ৪ ঘণ্টা বিদ্যুৎহীন ছিলেন। পরে দিরাই-শাল্লার ফিডার বিচ্ছিন্ন করে সন্ধ্যা ৬ টায় সুনামগঞ্জ শহর ও শহরতলির বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক করা হয়।
সুনামগঞ্জ বিদ্যুৎ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী বললেন,‘প্রধান প্রকৌশলীর নির্দেশে দিরাই-শাল্লাকে ১৩২ কেভি থেকে বিচ্ছিন্ন করে সুনামগঞ্জ বিদ্যুৎ বিভাগের সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছিল। কিন্তু এই লাইন এভাবে চালু করার পর বার বার সকল ফিডারে সঞ্চালন বন্ধ হয়ে যাচ্ছিল। পরে আবার এই লাইন বিচ্ছিন্ন করে দিয়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ্ স্বাভাবিক করা হয়।’