বিভিন্ন উপজেলায় বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী পালিত

সু.খবর রিপোর্ট
ধর্মপাশায় যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান, র‌্যালি, আলোচনা সভা, চিত্রাংকন ও কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণ থেকে এক র‌্যালি উপজেলা সদরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা গণমিলনায়তনে এসে শেষ হয়। পরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
দুপুর আড়াইটায় উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে স্থানীয় দলীয় কার্যালয়ে কেক কাটা, র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি স্থানীয় এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতনের সভাপতিত্বে এবং প্রচার সম্পাদক ও প্রকাশনা সম্পাদক জুবায়ের পাশা হিমুর (সাধারণ সম্পাদকের অনুমতিক্রমে) সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মনীন্দ্র চন্দ্র তালুকদার, সহ-সভাপতি আলমগীর কবির, ফখরুল ইসলাম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ বিলকিস, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মোজাম্মেল হোসেন রোকন, সেলবরষ ইউপি চেয়ারম্যান নূর হোসেন, সদর ইউপি আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. আরফান আলী প্রমুখ।
জগন্নাথপুর
রবিবার সকাল ১১টায় উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণ থেকে শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আব্দুস সামাদ আজাদ অডিটরিয়ামে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম মাসুমের সভাপতিত্বে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।
এতে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়াম লীগের সহসভাপতি সিদ্দিক আহমদ, জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আকমল হোসেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বিজন কুমার দেব, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু, জগন্নাথপুর থানার এসআই হাবিবুর রহমান প্রমুখ। পরে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ প্রতিযোগিতাদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
এদিকে দিবসটি উপলক্ষে জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের উদ্যোগে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
দিরাই
রোববার সকাল ১০টায় উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে কেক কাটা হয়। ১১টায় উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয় থেকে আনন্দ র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা স্মৃতি সৌধে পুস্পস্তবক অর্পন করে জাতির জনকের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে। দুপুর ১২টায় দলীয় কার্যালয়ে পৌর যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সরোয়ার আহমদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জুয়েল মিয়ার পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ রায়, উপজেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক বিকাশ রায়, আওয়ামীলীগ নেতা মুহিবুর রহমান মলন মিয়া, সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ সদস্য নাজমুল হক, ইউপি চেয়াম্যান এহসান চৌধুরী, পৌরসভার প্যানেল মেয়র বিশ^জিৎ রায়, সুনামগঞ্জ জজ কোর্টের এপিপি শহীদুল হাসমত খোকন, কাউন্সিলর সবুজ মিয়া, যুবলীগ নেতা সাজন সরদার, কামরুজ্জামান, শ্রমিক নেতা কফিল উদ্দিন, ছাত্রলীগ নেতা সোহেল মিয়া প্রমুখ। উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে স্থানীয় গণমিলনায়তনে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। দিরাই উপজেলা খেলাঘর’র উদ্যোগে সংগঠনের কার্যালয়ে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংগঠনের উপজেলা যুগ্ম আহবায়ক প্রদীপ দে’র সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সদস্য সচিব মোশাহিদ আহমদের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন গীতি কবি আব্দুর রহমান, সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব বিষ্ণুপদ রায়, নজরুল ইসলাম, প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান লিটন, প্রশান্ত সাগর দাস, ঝুটন সুত্রধর প্রমুখ।
তাহিরপুর
রবিবার উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে র‌্যালী সদরের বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পন করা হয়। পরে উপজেলা গণমিলনায়তন কেন্দ্রে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ নন্দন কান্তি ধর,উপজেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মিজানুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর খোকন, উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক হাফিজ উদ্দিন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কেয়ারটেকার আব্দুল হান্নান প্রমূখ। অপরদিকে ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক শিশুদের মধ্যে ৭ই মার্চের ভাষণ, হামদ,নাথ ও জাতীয় সঙ্গীত প্রতিযোগিদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
সকাল ১০টার দিকে উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের মসজিদ ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম ইসলামিক ফাউন্ডেশনের আয়োজনে বালিয়াঘাট নতুন বাজারের আবুল কাসেম খান দারুল আরকাম মাদসার প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।
বিশ্বম্ভরপুর
রবিবার সকালে উপজেলা প্রশাসন চত্বরে কেন্দ্রীয় স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তপক অর্পন করে উপজেলা প্রশাসন, থানা পুলিশ প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান।
উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে পুস্পস্তপক অর্পনের পর এক বিশাল শোভাযাত্রা উপজেলার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে উপজেলা পরিষদ গণমিলনায়তনে দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এছাড়াও দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ছাত্র/ছাত্রীদের মধ্যে চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সমীর বিশ্বাস মুক্তিযোদ্ধা কর্নার এর উদ্বোধন করেন।
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ
রোববার সকাল ১১ টায় পাগলা সরকারি মডেল হাইস্কুল এন্ড কলেজে আলোচনা সভা ও শিক্ষার্থীদের মাঝে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।
ছাতক
রবিবার সকালে উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করে উপজেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সংগঠন। পরে শহরে বের করা হয় এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি। র‌্যালি শেষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবেদা আফসারীর সভাপতিত্বে ও উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের ইন্সট্রাকটর মোস্তফা আহসান হাবিবের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান।
দোয়ারাবাজার
রোববার সকালে উপজেলা পরিষদ হল রুমে আলোচনা সভা ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মহুয়া মমতাজের সভাপতিত্বে ও মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মেহের উল্লাহ পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা শিক্ষাঅফিসার পঞ্চানন কুমার সানা, দোয়ারাবাজার সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মালেক, দোয়ারাবাজার থানা ওসি সুশীল রঞ্জন দাস, দোয়ারবাজার সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক অজয় কুমার দাস প্রমুখ।
এদিকে দুপুরে দোয়ারাবাজার উপজেলা মুক্তিযুদ্ধা কমপ্লেক্স হল রুমে দোয়ারাবাজার উপজেলা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন এর আহবায়ক অধ্যক্ষ একরামুল হকের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব অসিত তালুকদারের পরিচালনায় ৭ মার্চের ভাষণ প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরণ করা হয়। প্রতিযোগিতায় ১ম হন সহিদ মিয়া, ২য় জাকিয়া রহমান, ৩য় সাইফুল ইসলাম।