বিশ্বম্ভরপুরে কালবৈশাখী ঝড়ে শতাধিক ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত

স্বপন কুমার বর্মন, বিশ্বম্ভরপুর
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার পলাশ ইউনিয়নের ধরেরপাড়, আদুখালী, মজুমদারী গ্রামে কালবৈশাখী ঝড়ে শতাধিক ঘরবাড়ী ও গাছপালার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। জানা যায়, গত বুধবার দিবাগত রাত এগারোটায় হঠাৎ প্রবল ঝড়ে উপজেলার ধরেরপাড় গ্রামের পূর্বপাড়া, ঠাকুরহাটি, আদুখালী, মজুমদারী গ্রামের বেশ কিছু ঘরের চাল উড়িয়ে নিয়ে যায়। এছাড়া গাছপালা ভেঙে ব্যাপক ক্ষতি হয়। ধরেরপাড় গ্রামের ঠাকুরহাটির কালী মন্দির, সুনিল শর্ম্মার মন্দির, আদুখালী গ্রামের শিব মন্দিরের আংশিক ক্ষতি হয়।
ঠাকুরপাড়ার রঞ্জিত শর্ম্মা, বসন্ত শর্ম্মা, নিমাই শর্ম্মা, বিজয় শর্ম্মা, অজিত শর্ম্মা, মৃত্যুঞ্জয় শর্ম্মা, আশুতোষ শর্ম্মা, অশ্বনী শর্ম্মা, প্রানেশ শর্ম্মা, বিজিতা শর্ম্মা, রাজিব শর্ম্মা, সুভাস শর্ম্মা, সুরেশ শর্ম্মা, অভিনাশ শর্ম্মা, পূর্ব হাটির কৌশলা বালা দাশ, সুশিল বিশ্বাস, ছাউ বেটির ঘর, শৈলেন শর্ম্মা, আদুখালী গ্রামের নরেন্দ্র দেবনাথ, রমেন্দ্র দেবনাথ, রামানন্দ দেবনাথ, প্রবিন্দ্র দেবনাথ, দিজেন দেবনাথসহ ৩০/৩৫জন কৃষকের ঘরবাড়ী ও গাছপালার ব্যাপক ক্ষতি হয়।
বিজয় শর্ম্মা ও সুভাস শর্ম্মা জানান, রাত ১১টায় প্রবল বেগে ঝড় শুরু হলে গ্রামবাসী আতংকে চিৎকার করতে থাকে। এসময় অনেক ঘরবাড়ীর ও গাছপালার ব্যাপক ক্ষতি হয়।
অভিনাশ শর্ম্মা বলেন, ‘প্রবল ঝড়ে আমার ধানের গোলার চাল উড়িয়ে নিয়ে যায়। বসত ঘরের পাশাপাশি ধানেরও ক্ষতি হয়।’
আদুখালী গ্রামের বিল্টু দেবনাথ ও ধরের পাড় গ্রামের আশুতোষ শর্ম্মা জানান, ঝড়ে ঘড় বাড়ী গাছপালার ব্যাপক ক্ষতি হয়।