বিশ্বম্ভরপুর ও জামালগঞ্জে ৪টি চড়ক পূজা অনুষ্ঠিত

বিশ্বম্ভরপুর ও জামালগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রতিবছরের ন্যায় এবারো ৩০ চৈত্র সংক্রান্তিতে রবিবার ধর্মীয় ভাবগাম্ভির্যের মাধ্যমে বিশ্বম্ভরপুর ও জামালগঞ্জে পৃথক স্থানে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে চারটি চড়ক পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বিশ্বম্ভরপুরে উপজেলা শিব মন্দির প্র্রাঙ্গণে ও শ্রীধরপুর কৃষ্ণতলা প্রাঙ্গণে, জামালগঞ্জের নয়মৌজার ছয়হারা ও খুজারগাঁও গ্রামের মাঠে চড়ক পূজা অনুষ্ঠিত হয়।
প্রতিটি চড়ক পূজায় হাজারো শিব ভক্তের সমাগমে সাময়িক সময়ের জন্য সন্যাসধর্ম পালনকারী সন্যাসীদের পিঠে লোহার বড়শি গেঁথে শিব পূজার চড়কের মাধ্যমে লম্বা রশি দিয়ে ঘুরানো হয়।
জানা যায়, প্রতিটি চড়ক পূজার আশেপাশের গ্রামের হিন্দু ধর্মাবলম্বী বিভিন্ন বয়সের লোকজন সন্যাসধর্ম পালন শেষে চড়ক পূজা অর্চনাসহ নানা কর্মসূচি পালন করেন।
কর্মসূচির মধ্যে বিভিন্ন গ্রামের বাড়ী বাড়ী গিয়ে সন্যাসীরা ঢাকঢোল সহকারে সন্যাস গান পরিবেশন, চড়ক পূজার আগের দিন হরগৌরীর বিয়ে, গৌরী নাচ, কালী নাচ, শিবপূজাসহ তান্ত্রিক মন্ত্রে নানা আকর্ষণীয় খেলাধুলা ইত্যাদি প্রদর্শন করেন।
ছয়হারা গ্রামের চড়ক পূজা উপলক্ষে গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের মাঠে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ-সিলেট সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শামীমা শাহরিয়ার। তিনি নিজস্ব অর্থায়নে ছয়হারা গ্রামে একটি শিব মন্দির তৈরীর আশ^াস প্রদান করেন এবং নয়মৌজাবাসীর শত বছরের সম্প্রীতির বন্ধন ধরে রাখার জন্য সবার প্রতি অনুরোধ করেন।
উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ফেনারবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান করুনা সিন্ধু তালুকদারের সভাপতিত্বে ও অ্যাড. বিজিত তালুকদারের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য অ্যাড. কল্লোল তালুকদার চপল।
উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার শ্রীকান্ত তালুকদার, ছয়হারা গ্রামের মুরব্বী নান্টু তালুকদার, জেলা ছাত্র লীগের সাবেক সভাপতি জীতেন্দ্র তালুকদার পিন্টু প্রমুখ।
আলোচনা সভার পর চড়ক পূজা পরিদর্শন করেন এমপি অ্যাড. শামীমা শাহরিয়ার। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রিয়াংকা পাল, থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল আলম, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ইউসুফ আল আজাদ, ভীমখালী ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান তাজউদ্দিন, জেলা ছাত্র লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদুল হাসান তারেক প্রমুখ।
বিশ্বম্ভরপুরের শিব মন্দির চড়ক পূজায় মূল সন্যাসী ছিলেন হবিগঞ্জ লাখাই এর শ্রীদাম সন্ন্যাসী। এখানে লোহার বড়শি গাঁথা হয় বিশ্বম্ভরপুর গ্রামের বিশ্ব বর্মন ও শিওল বিশ্বাসের পিঠে। শ্রীধরপুর কৃষ্ণ তলার চড়ক পূজায় মূল সন্যাসী ছিলেন ব্রজসুন্দর দেবনাথ, সহযোগী ছিলেন দিগেন্দ্র বিশ্বাস আবু । এখানে বড়শি গাঁথা হয় শ্রীধরপুর গ্রামের জয় গোবিন্দ বিশ্বাস ও কার্তিক বিশ্বাসের পিঠে। বিশ্বম্ভরপুরের দু’টি চড়ক পূজা অনুষ্ঠানে উপজেলা সদর এলাকার ৫০/৬০ জন সন্যাস সংযম পালন করে পূজায় অংশগ্রহণ করেন।
বিশ্বম্ভরপুরের চড়ক পূজা অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সমীর বিশ্বাসসহ উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, গণমাধ্যম প্রতিনিধিসহ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
উক্ত চড়ক পূজায় আগত ভক্তবৃন্দ বিভিন্ন মানতের কবুতর, পাঠা, নগদ টাকা দান করেন ও রাতেসার ছড়িয়ে দেন।