ব্রিটিশ বাংলাদেশী চিকিৎসকদের নেতৃত্বে গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘ব্রিটিশ হেলথ এলায়েন্স’

লন্ডন প্রতিনিধি
ব্রিটিশ বাংলাদেশী চিকিৎসকদের নেতৃত্বে লন্ডনে স্বাস্থ্য বিষয়ক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘ব্রিটিশ হেলথ এলায়েন্স’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করেছে। এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে যাত্রা শুরু হয় সংগঠনটির। ব্রিটেনের শীর্ষ স্থানীয় এনএইচএস ডাক্তারদের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত এ গবেষণা প্রতিষ্ঠানে রয়েছেন বিভিন্ন পেশার অভিজ্ঞজনরা। পার্লামেন্ট সদস্য থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য বিষয়ক গবেষকরা। সম্পূর্ণ অলাভজনক স্বাধীন এ প্রতিষ্ঠানটি রোগীদের সাথে আলোচনার মাধ্যমে স্বাস্থ্য পলিসি নির্ধারণের ব্যাপারে সরকারকে সহযোগিতামূলক কাজ করবে এবং তৃণমূলের মানুষের স্বাস্থ্যগত ধারণা সরকারের স্বাস্য নীতিতে প্রতিফলন ঘটানো সংগঠনটির মূল লক্ষ্য।
মহামারী করোনার আক্রমণের পর ব্রিটেনের স্বাস্থ্য পরিস্থিতি কেমন হবে এবং তা থেকে কিভাবে দ্রুত উত্তরণ করা যায় তা নিয়ে গবেষণা শুরু করেছে সংগঠনটি। এই স্বাস্থ্য গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি শুধু ব্রিটেনেই নয় তারা বিশ্বের অন্যান্য দেশের স্বাস্থ্য পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ ও পর্যালোচনা করবে এবং সে সব দেশের স্বাস্থ্য সেবা উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করবে।
বিশেষ করে বাংলাদেশ ও ভারতের স্বাস্থ্য সেবা নিয়ে ‘ব্রিটিশ হেলথ এলায়েন্স’ কাজ করবে বলে জানিয়েছে। এর চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পেয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এনএইচএস’র সিনিয়র ডা. আনোয়ারা আলী এমবিই। ডেপুটি চেয়াম্যান নির্বাচিত হয়েছেন প্রফেসর নাদী হাকিম, সেক্রেটারির দায়িত্ব পালন করবেন ডাক্তার এমা হোগান এবং কোষাধ্যক্ষের দায়িত্বে রয়েছেন মিস্টার মায়াঙ্ক প্যাটেল।
এছাড়াও অন্যান্য দায়িত্বে রয়েছেন ডাক্তার নোশাবা খিলজী, ডাক্তার হায়দার জাব্বার, কাউন্সিলর শাদ আদহ, ডাক্তার র‌্যাচেল জয়েস, আতিক রহমান, এ্যাশ জামান।
ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে মূল আলোচক হিসেবে আলোচনায় অংশ নেন ব্রিটিশ সরকারের স্বাস্থ্য বিষয়ক কমিটির সদস্য এবং ব্রিটিশ হেলথ এলায়েন্সের কো-প্রেসিডেন্ট ডাক্তার জেমস ডেভিস এমপি।
এসময় স্বাস্থ্য এবং প্রতিষ্ঠানের পরিকল্পনার উপর আলোচনায় অংশ নেন প্রতিষ্ঠানের উপদেষ্টা বোর্ডের সদস্য জয় মরিসি এমপি এবং লন্ডন সিসিজি এর চেয়ার স্যার প্রফেসর স্যাম এভারিংটন সহ নতুন কমিটির সদস্যরা।
প্রতিষ্ঠানটির উপদেষ্টাদের মধ্যে আরও রয়েছেন লর্ড এন্ড্রো শার্প, এঙ্গেলা রিচার্ডসন এমপি, বব ব্ল্যাকম্যান এমপি এবং গোট্স মহিন্দ্রা।
মহামারী করোনাভাইরাসের চলমান স্বাস্থ্য সংকটের ভয়াবহ পরিস্থিতির ফলে একটি বাস্তব সম্মত স্বাস্থ্য প্রণালী উদ্ভাবনের তাগিদে এ স্বাস্থ্য বিষয়ক গবেষণা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার উদ্যোগ নেয়া হয় বলে জানান প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ব্রিটিশ বাংলাদেশী ডাক্তার আনোয়ারা আলী এমবিই।