ভাঙচুরের ভয়ে বাস বন্ধ -সড়কমন্ত্রী

সু.খবর ডেস্ক
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দাবি করেছেন, নিরাপত্তাহীনতার আশঙ্কা থেকে রাস্তায় বাস নামাচ্ছেন না পরিবহন মালিকরা। সরকারি পরিবহন সংস্থা বিআরটিসির চালকরাও আশঙ্কার কথা তাকে জানিয়েছেন বলে জানান মন্ত্রী। শুক্রবার সকালে রাজধানীতে অঘোষিত বাস ধর্মঘট নিয়ে এক প্রশ্নে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন সড়কমন্ত্রী।
নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করতে শিক্ষার্থীদের টানা আন্দোলন ও ব্যাপকহারে গাড়ির কাগজ ও লাইসেন্স পরীক্ষার মধ্যে শুক্রবার হঠাৎ বিনা ঘোষণায় কার্যত পরিবহন ধর্মঘট শুরু হয়ে গেছে। ঢাকার সঙ্গে স্বল্প পাল্লার এবং দূরপাল্লার বিভিন্ন রুটে চলছে না বাস। আর কোনো ঘোষণা ছাড়া এই পরিস্থিতিতে তীব্র ভোগান্তিতে পড়েছে যাত্রীরা।
কাদের বলেন, ‘আগুনের ভয়ে ভাঙচুরের ভয়ে, মারপিটের ভয়ে অনেক যানবাহন রাস্তায় নামছে না।’
ছাত্রদের এই আন্দোলনে পাঁচ দিনে ৩১৭টি বাস ভাঙচুর এবং আটটিতে আগুন দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।
সড়কমন্ত্রী বলেন, ‘আমি নিজেই গতকাল পর্যন্ত বিআরটিসির গাড়ি চালিয়েছিলাম। সে ড্রাইভাররা এখন জীবনের আশঙ্কায় নিরাপত্তার ভয়ে গাড়ি চালাতে চায় না।’
গত রবিবার বিমানবন্দর সড়কে বাস চাপায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনে নামে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা। তবে বৃহস্পতিবার থেকে তাদের সঙ্গে বিভিন্ন এলাকায় বয়স্কদের দেখা গেছে।
এমনকি গভীর রাতেও রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে ড্রাইভিং লাইসেন্স পরীক্ষা চলেছে। আর এই তরুণরা অনেক বেশি মারমুখী, ছবি তুলতে গেলেও তারা বাধা দেয়। কিন্তু সংবেদনশীল বিবেচনায় পুলিশও কোনো ব্যবস্থা নিতে পারছে না।
সড়কমন্ত্রী বলেন, ‘যানবাহন চলাচলে এই আন্দোলনে সারা যোগাযোগ ব্যবস্থায় কালো ছায়া নেমে এসেছে। ব্যবসা বাণিজ্যের ক্ষতি হচ্ছে। মানুষ গাড়ির অভাবে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে।’
সরকার বসে নেই জানিয়ে আন্দোলনকীদের শান্ত হওয়ার অনুরোধও করেন ওবায়দুল কাদের। বলেন, আগামী সেপ্টেম্বরে সড়ক পরিবহন সংশোধনী আইন পাস হয়ে গেলেই আরও কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব হবে।
কাদের দলের নেতাদের সঙ্গে এই যৌথসভা করেন ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালনকে সামনে রেখে প্রস্তুতির অংশ হিসেব।
‘শোকের মাসে কেউ যেন চাঁদাবাজি করতে না পারে সেজন্য আমাদের নেতৃবৃন্দকে মনিটরিং করতে বলেছি। সতর্ক থাকতে বলেছি।’
‘বিলবোর্ড, পোস্টার, ব্যানারে যেন শৃঙ্খলভাবে প্রদর্শন করা হয়। আগস্ট মাসের ভাবগাম্ভীর্য যেন নষ্ট না হয়। এ ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে বলেছি।’
সূত্র : ঢাকা টাইমস