ভাঙনের মুখে জয়নগর- মোহনপুর সড়ক

স্টাফ রিপোর্টার
সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার জয়নগর-মোহনপুর সড়কের পাশে সুরমা নদী থেকে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিনে বালু ডাম্পিং করায় নদী ভাঙ্গন ও সড়কটি ভেঙে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী।
বুধবার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) বরাবরে লিখিত আবেদন থেকে জানা যায়, মোহনপুর ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মো. রইছ মিয়া ও তার আত্মীয় স্বজনসহ কিছু ব্যবসায়ী দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ ড্রেজার মেশিনে বালু উত্তোলন করে নদীর তীরে ডাম্পিং করছে। এতে নদী ভাঙ্গনসহ কয়েকটি গ্রামের চলাচলের একমাত্র সড়কটিও ভেঙ্গে যাচ্ছে। এ ঘটনায় সম্প্রতি মোহনপুর যুবকল্যাণ পরিষদের সদস্যবৃন্দ জেলা প্রশাসক বরাবরে ড্রেজার মেশিন বন্ধের আবেদন করলে প্রশাসন গত ৩ জুলাই ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালিয়ে তিনটি অবৈধ ড্রেজার আগুনে পুড়িয়ে দেয়। এ ঘটনায় কয়েকজন ব্যবসায়ী যুবকদের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসক বরাবরে ব্যবসায় বাধা দিচ্ছে এমন অভিযোগ করে। গত ৬ আগস্ট অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক উভয় পক্ষকে তার কার্যালয়ে ডেকে এনে অভিযোগের শুনানী করেন। শুনানিতে যুবকদের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীদের দায়েরকৃত অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হয়। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক অবৈধ ড্রেজার মেশিনে বালু উত্তোলন করে নদী ও সড়ক ভাঙ্গার চেষ্টা করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে উভয় পক্ষকে জানিয়ে দেন।
বুধবার সকালে ইউপি সদস্য রইছ মিয়া ও তার স্বজনরা প্রশাসনের আদেশ উপেক্ষা করে ড্রেজার মেশিন লাগিয়ে বালু উত্তোলন করতে থাকে। এসময় এলাকার যুবকরা বাধা দেন। এ নিয়ে বাকবিত- হয়।
এ ঘটনায় বুধবার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন মোহনপুর যুব কল্যাণ পরিষদের সহ সভাপতি ও মোহনপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি জনিক মিয়া। তিনি সকল অবৈধ ড্রেজার মেশিন বন্ধ করে নদী ও সড়ক রক্ষার দাবি জানান।
এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বলেন, ড্রেজার মেশিনে বালু উত্তোলনের আইনত কোন সুযোগ নেই। আমি যুবসমাজকে লিখিত অভিযোগ দিতে বলেছি। অবশ্যই আইনের ব্যত্যয় ঘটিয়ে কেউ কিছু করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।