মধ্যনগরে মন্ত্রীকে নৌকা দিয়ে আওয়ামী লীগে যোগ দিলেন নাশকতার মামলার আসামী

স্টাফ রিপোর্টার
দুটি নাশকতার মামলার আসামী তাহিরপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তাহিরপুর উপজেলা বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ও উপজেলা যুবদলের আহবায়ক বোরহান উদ্দিন আওয়ামী লীগে যোগদান করেছেন।
শনিবার বিকালে মধ্যনগর থানা আওয়ামীলীগ আয়োজিত উবদাখালী নদী ও কায়েতকান্দা সুমেশ্বরী নদীর সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও মধ্যনগরকে আধুনিকায়ন করার লক্ষ্যে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো.তাজুল ইসলাম’র উপস্থিতিতে জনসভা মঞ্চে মন্ত্রীসহ অন্যান্যদের নৌকা হাতে তুলে দিয়ে বোরহান উদ্দিন আওয়ামী লীগে যোগদান করেন।
জনসভায় উপস্থিত ধর্মপাশা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি স্থানীয় সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতনসহ উপস্থিত নেতৃবৃন্দ বোরহান উদ্দিনকে স্বাগত জানান।
তাহিরপুর উপজেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান কামরুলের কাছে নাশকতার মামলার বর্তমান অবস্থা জানতে চাইলে বলেন,‘তাহিরপুরে গত বছরের নভেম্বর মাসের পাঁচ তারিখে দায়ের করা নাশকতার মামলায় (নম্বর-১৯৩) ৫৫ জনকে আসামী করা হয়। এই মামলার এক নম্বর আসামী আমি, দুই নম্বর আসামী ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন। আরেকটি মামলা হয় পহেলা এপ্রিল ২০১৮ তারিখে। ওই নাশকতার মামলায়ও (নম্বর ১৫২) বোরহান উদ্দিন আসামী। দুই মামলারই চার্জশীট এখনো হয়নি। তবে আমরা আদালত থেকে জামিন নিয়েছি।’
সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার বরকতুল্লাহ্ খান বলেন,‘বোরহান উদ্দিন নাশকতার মামলার আসামী ছিলেন। মামলাগুলোর চার্জশীট এখনো হয়নি। তদন্ত চলছে, তদন্ত শেষে চার্জশীট হবার পূর্ব পর্যন্ত তাকে অপরাধী বলা যাবে না।’
তাহিরপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বুরহান উদ্দিন বললেন,‘আমার পরিবার মুক্তিযোদ্ধা পরিবার। আমি আগে বিএনপির রাজনীতি করেছি। বেশকিছু দিন আগে আমি বিএনপি থেকে পদত্যাগ করেছি। শনিবার আওয়ামী লীগে যোগদান করেছি।’