‘মানবতাবাদই নজরুলের চেতনার মূল সুর’

স্টাফ রিপোর্টার
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৯ তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে। ‘সুন্দর হে, দাও দাও সুন্দর জীবন হউক দূর অকল্যাণ, সকল অশোভন’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে শুক্রবার বেলা ১১টায় অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা ও সংগীতানুষ্ঠান।
জেলা শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে হাছন রাজা মিলনায়তনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মো. সাবিরুল ইসলাম।
জেলা শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নুরুজ্জামান, সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের সহকারি অধ্যাপক মো. জাকির হোসেন প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে বক্তারা জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামকে মানবতার কবি, অসাম্প্রদায়িক ও সম্প্রীতির কবি হিসেবে আখ্যায়িত করেন। বক্তারা বলেন, মানবতাবাদই নজরুলের চেতনার মূল সুর। বহুমাত্রিক চেতনার নজরুলকে নিয়ে অনেকে নানা রাজনীতি করার অপপ্রয়াস করেন, নজরুলকে নানা দৃষ্টিভঙ্গি থেকে ব্যাখ্যা করে থাকেন। প্রকৃত অর্থে নজরুল দুঃখ-কষ্ট-যন্ত্রণা-নিপীড়ন-নির্যাতনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী ছিলেন। তিনি বৃটিশের বিরুদ্ধে বাঙালি চেতনায় উদ্বুদ্ধ করেছেন সকল মানুষকে। অসাম্যের বিরুদ্ধে, অন্যায়ের বিরুদ্ধে দৃঢ়ভাবে তিনি জাতীয় জাগরণের অণুপ্রেরণা সৃষ্টি করেছেন।
অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জেলা শিল্পকলা একাডেমির কালচারাল অফিসার আহমেদ মঞ্জুরুল হক চৌধুরী পাভেল।
আলোচনা সভা শেষে সংগীত পরিবেশন করেন জেলা শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীবৃন্দ।
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৯ তম জন্মজয়ন্তী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের শিল্পী, সদস্য এবং বিভিন্ন শ্রেণি পেশার লোকজন।