মিড ডে মিল’এ শতভাগ সফল জামালগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়

জামালগঞ্জ প্রতিনিধি
জামালগঞ্জে ‘মিড ডে মিল’-এ শতভাগ সফলতা পেয়েছে জামালগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের নির্দেশনায় গত ৯ সেপ্টেম্বর সোমবার থেকে দুপুরের খাবার সংক্রান্ত এ নিয়ম চালু করে বিদ্যালয়টি। উপজেলার ৪টি বিদ্যালয়ে ‘মিড ডে মিল’ চালু করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে জামালগঞ্জ মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, জামালগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, সাচনা বাজার উচ্চ বিদ্যালয় ও ভীমখালী উচ্চ বিদ্যালয়।
জামালগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিধান ভ‚ষণ চক্রবর্ত্তী জানান, দীর্ঘক্ষণ পাঠ অধ্যয়নে শিক্ষার্থীরা যাতে ক্ষুধাক্লান্ত হয়ে পাঠে অমনোযোগী না হয় সেই দৃষ্টিকোণ থেকে সরকার ‘মিড ডে মিল’ চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তারই অংশ হিসেবে জামালগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ও ‘মিড ডে মিল’ চালুর ব্যবস্থা করে। বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ প্রতিদিন শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আদায়কৃত টাকায় খাবার বন্টনের সিদ্ধান্তে না গিয়ে বরং শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের টিফিন বক্সে করে দুপুরের খাবার নিয়ে আসার আহবান জানায়। তাতে শতভাগ সফলতা আসে।
তিনি আরও জানান, প্রথমদিন শতকরা ৬৫ ভাগ, দ্বিতীয় দিন ৯২ ভাগ এবং ৩য় দিন শতভাগ শিক্ষার্থী দুপুরের খাবার সাথে করে নিয়ে আসে। এতে করে শিক্ষার্থীরা পুষ্টিহীনতা থেকে যেমন মুক্তি পাবে তেমনি ক্ষুধাকাতরতা দূর করে পাঠে বাড়তি মনোযোগ সৃষ্টি করবে।
জামালগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী সুরভী জানায়, ‘আমরা প্রতিদিনই দুপুরের খাবার সাথে নিয়া আইমু। হাফ্ টাইমের সময় এই খানি খাইয়া শান্তিমতো ক্লাস করতে পারমু। এই নিয়ম ভালো।’
৯ম শ্রেণির ছাত্রী তিথি দাস বলেন, ‘সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত ক্লাস করার পর শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে। মিড ডে মিল চালু হওয়ায় ভালো হয়েছে। এখন থেকে সবাই দুপুরের খাবার খেয়ে পরবর্তী ক্লাসে অংশ নিতে পারব।’
এ ব্যাপারে জামালগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মাহবুবুল কবীর বলেন, ‘আমরা উপজেলার ৪টি বিদ্যালয়ে এ সুবিধা চালু করেছি। দু’একটিতে প্রায় শতভাগ পূরণ হয়েছে। আশা করি আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সবগুলোতেই সফলতা আসবে।’