মুক্তিযুদ্ধের ৬টি ঐতিহাসিক স্থান সংরক্ষণের উদ্যোগ

স্টাফ রিপোর্টার
সুনামগঞ্জের মুক্তিযুদ্ধের ৬টি উল্লেখযোগ্য ঐতিহাতিক স্থান সংরক্ষণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এর মাধ্যমে এসব উল্লেখিত স্থানসমূহ সংরক্ষণ করা হবে।
প্রতিটি স্থান সংরক্ষণে ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫ লাখ টাকা। ৬টি স্থান স্থান সংরক্ষণে মোট ব্যয় হবে ২ কোটি ১০ লাখ টাকা।
সুনামগঞ্জের যেসব স্থান সংরক্ষণ করা হবে সেগুলো হল- দক্ষিণ সুনামগঞ্জের আহসানমারা সেতু এলাকা, দিরাইয়ের শ্যামারচর বাজার নদীর পার্শ্ববর্তী স্থান, ধর্মপাশা উপজেলার শহীদ আব্দুল হাই এবং শহীদ মোফাজ্জল হোসেন স্মৃতি সৌধ, জামালগঞ্জ উপজেলার সাচনাবাজার মেমোরিয়াল, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার পিটিআই বধ্যভূমি ও তাহিরপুরের বড়ছড়া বধ্যভূমি।
জানা যায়, গত ফেব্রুয়ারি মাসে মুক্তিযুদ্ধের ঐতিহাসিক স্থানসমূহ সংরক্ষণ ও মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি জাদুঘর নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় তালিকাভুক্ত স্থানসমূহের নির্মাণ কাজের জন্য জমির তথ্য চেয়ে প্রকল্প পরিচালক নির্বাহী প্রকৌশলীদের অনুরোধ করেন। প্রকল্প পরিচালকের চিঠি পেয়ে এলজিইডি সুনামগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী গত ৪ সেপ্টেম্বর জেলার সংশ্লিষ্ট উপজেলা প্রকৌশলীকে উল্লেখিত জমির সকল তথ্যাদি প্রেরণের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।
এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী ইকবাল আহমদ বলেন,‘ সুনামগঞ্জের মুক্তিযুদ্ধের ৬টি ঐতিহাসিক স্থান সংরক্ষণ ও অবকাঠামো নির্মাণ করা হবে। ওই স্থানের জমির প্রকৃত অবস্থাসহ প্রয়োজনীয় সকল তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। উপজেলা প্রকৌশলীরা বিষয়টি নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে কথা বলে কাজ করছেন। স্থান ও জমির পরিমাণের উপর নির্ভর করে স্থাপত্য শিল্পীরা ডিজাইন করবেন। এরপর আমরা অবকাঠামো নির্মাণের উদ্যোগ নেব।’